ইউটিউব বা ইউটিউব ভিডিও কি ?

বর্তমান সময়ে ইউটিউব বা ইউটিউব ভিডিও সম্পর্কে আমরা প্রায় সবাই কম বেশী জানি। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথে ইউটিউব শব্দটি ওতপ্রতভাবে জড়িয়ে গেছে । বর্তমানে ইউটিউব থেকে ভিডিও না দেখলে আমাদের একদিনও চলে না। ইন্টারনেটে যে কোন কিছু জানার প্রয়োজন হলেই আমাদের মাথায় প্রথম আসে ইউটিউব শব্দটি। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ইউটিউব বা ইউটিউব ভিডিও সম্পর্কে খুটি নাটি বিষয় সবিস্তারে আলোচনা করব ।

ইউটিউব কি ?

ইউটিউব বা Youtube হলো অনলাইন ভিডিও শেয়ার করার জন্য তৈরি একটি ওয়েবসাইট । যা পরিচালিত হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান ব্রুনো, ক্যালিফোর্নিয়া থেকে। ইউটিউব কি এই প্রশ্নের উত্তর এক কথায় বলতে গেলে আমরা প্রায় সবাই জানি। ২০০৫ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে সর্বপ্রথম যখন ইউটিউবের যাত্রা শুরু হয় তখন এর সংজ্ঞা হিসেবে হয়ত ঐ একটা বাক্যই যথেষ্ট ছিল। কিন্তু বর্তমান সময়ে ইউটিউবে শুধু শেয়ার করা নয়, ভিডিও ক্লিপ, সিনেমা, নাটক, গান, ডকুমেন্টরি এবং আরো বিভিন্ন প্রকারের ভিডিওর এক বিশাল সংগ্রহশালায় পরিণত হয়েছে। গুগলের অংশ হিসেবে যুক্ত হওয়ার পর থেকেই হোস্টেড এডসেন্সের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকার এড প্রদর্শন করিয়ে এখান থেকে অর্থ উপার্জন করা যাচ্ছে। বাংলাদেশের কিছু নতুন ইউটিবার দ্রুত অর্থ উপার্জনের চক্করে পড়ে ইউনিক এবং মানসম্মত কন্টেন্ট নির্মাণের পরিবর্তে  মানহীন এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে অশ্লীল এবং কুরুচিপূর্ণ কন্টেন্ট তৈরি করে প্রচার করছে। তবে ভাল খবর হচ্ছে বাংলাদেশের বেশিরভাগ ইউটিউবার, ইউনিক এবং বিশ্বমানের কন্টেন্ট তৈরি করে থাকে।

ইউটিউব এর জনক কে ?

২০০৫ সালে তিনজন প্রাক্তন পেপাল (PayPal) কর্মী একটি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট তৈরি করেছিলেন, যেটি বিশ্বজুড়ে আজ ইউটিউব নামে সবার কাছে পরিচিত। সুতরাংএর মাধ্যমে আমরা বলতেই পারি ইউটিউব এর জনক মুলত তিন জন । ইউটিউব তৈরির পেছনে ছিলেন আমেরিকান নিবাসী জার্মান বাংলাদেশি জাভেদ করিম, চাদ হারলে এবং স্টিভ চেন

ইউটিউব এর বর্তমান মালিক কে ?

২০০৫ সালে ইউটিউবের যাত্রা শুরু হওয়ার পর, ২০০৬ সালের নভেম্বর মাসে ১.৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে গুগল ইউটিউবকে কিনে নেয় । সুতরাং ইউটিউবের এর বর্তমান মালিক হচ্ছে সার্চ জায়ান্ট খ্যাত গুগল

ইউটিউব কেন তৈরি হয়েছিল ?

২০০৫ সালের দিকে জাভেদ করিম, চাদ হারলে এবং স্টিভ চেন এই তিন বন্ধু অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ বা শেয়ার করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা তিনজন অনেক খুজেও কোন ভিডিও প্রকাশ বা শেয়ার করার মত ওয়েবসাইট খুঁজে পেলেন না। তখন তারা তিনজন নিজেরাই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করলেন। আর এই সিদ্ধান্তের ধারাবাহীকতাতেই তৈরি করা হয় আজকের ইউটিউব।

ইউটিউব এর প্রথম ভিডিও কোনটি ?

ইউটিউবের সর্বপ্রথম ভিডিও Jawed (জাভেদ) নামক ইউটিউব চ্যানেলে Me at the zoo (মি অ্যাট দ্যা জু) শিরনামে আপলোড করা হয়েছিল। নিচে ইউটিউবে প্রথম আপলোড করা Me at the zoo (মি অ্যাট দ্যা জু) শিরনামের ভিডিওটি দেওয়া হল।

ইউটিউবের সর্বপ্রথম ভিডিও

ইউটিউবার কাকে বলে ?

এক কথায় বলতে গেলে যে বা যারা ইউটিউবের জন্য কন্টেন্ট বা ভিডিও তৈরি করে এবং সেই ভিডিও বা কন্টেন্ট ইউটিউবে প্রকাশ বা আপলোড করে তাদেরকেই মুলত ইউটিউবার বলা হয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে একজন সফল ইউটিউবার হয়ে উঠতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই প্রচুর ধৈর্য ও সততার পরিচয় দিয়ে কাজ করতে হবে। আপনার তৈরি করা ভিডিওর বিষয়বস্তু হতে হবে সবার থেকে আলাদা । আপনি যদি মনে করেন চ্যানেল তৈরি করে ভিডিও প্রকাশ করার সঙ্গে সঙ্গেই লক্ষ লক্ষ ভিউস ও সাবস্ক্রাইবার আসা শুরু হয়ে যাবে অথবা হাজার হাজার টাকা আয় হবে—এটা চিন্তা করা সম্পূর্ণ রুপে ভুল হবে। তাই যদি আপনি নিজেকে এক সফল ইউটিউবার হিসেবে দেখতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে ধৈর্য ধরে কাজ করে যাওয়ার পাশাপাশি অনেক সময় ও শ্রম দিতে হবে।

একজন সফল ইউটিউবার হতে কি কি জানা প্রয়োজন

  • ১। ইউটিউব সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা (Basic of youtube) থাকতে হবে
  • ২। কিভাবে ইউটিউবিং শুরু বা স্টার্ট করবেন ?
  • ৩। কিভাবে একটি প্রফেশনাল লেভেলের ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করবেন।
  • ৪। কিভাবে একটি হোস্টেড গুগল ‪#‎AdSense একাউন্ট ওপেন করবেন।
  • ৫। YouTube ও গুগল এডসেন্স সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারনা নিতে হবে।
  • ৬। কিভাবে আপনার তৈরি YouTube চ্যানেলের সঙ্গে আপনার গুগল AdSense একাউন্ট যোগ করবেন ?
  • ৭। কিভাবে একাধিক ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে একসঙ্গে কাজ করবেন।
  • ৮। কিভাবে একটি প্রফেশনাল লেভেলের ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করবেন।
  • ৯। কিভাবে বিভিন্ন সফটওয়্যার ব্যাবহার করে প্রফেশনাল মানের ভিডিও এডিটিং করবেন (ভিডিও ইন্ট্রো এবং আউট্রো সহ)
  • ১০। কিভাবে YouTube এ আপনার তৈরি করা ভিডিও শেয়ার বা আপলোড করবেন এবং ভিডিও মোনেটাইজ করবেন।
  • ১১। কোন কোন ধরণের ভিডিও নিয়ে কাজ করলে খুব দ্রুত সফল হতে পাড়বেন।
  • ১২। কিভাবে কপিরাইট কন্টেন্ট বা ভিডিও নিয়ে কাজ করে সফল হতে পারবেন।
  • ১৩। কিভাবে YouTube এর ভিডিও এস ই ও (SEO) করবেন।
  • ১৪। কিভাবে ভিডিওর জন্য বিভিন্ন ট্যাগ সম্পর্কে রিচার্জ করবেন।
  • ১৫। কিভাবে আপনার প্রকাশ করা ভিডিওর ভিউস বৃদ্ধি করবেন।
  • ১৬। কিভাবে Social Media Marketing এর মাধ্যমে বিদেশী ভিসিটর আপনার চ্যানেলে নিয়ে আসবেন।
  • ১৭। কিভাবে খুব দ্রুততার সাথে আপনার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার ‪(‎Subscriber) বাড়াবেন।
  • ১৮। কিভাবে আপনার চ্যানেল টি খুব সুন্দর এবং প্রফেশনাল ভাবে কাস্টমাইজেশন করবেন।
  • ১৯। কিভাবে আপনার গুগল AdSense একাউন্টটি একদম সঠিক ভাবে Setting করবেন।
  • ২০। কিভাবে গুগল এডসেন্সের পিন সঠিকভাবে ভেরিফিকেশন করবেন।
  • ২১। কিভাবে আপনার গুগল এডসেন্সের সঙ্গে ব্যাংক একাউন্ট যোগ করবেন।
  • ২২। কিভাবে আপনার এডসেন্স একাউন্ট থেকে ডলার/টাকা উত্তোলন করবেন বা হাতে পাবেন।
  • ২৩। ভিডিও ইউটিউবে র‍্যাঙ্ক করানোর জন্য বিভিন্ন ধরণের সফটওয়ার কিভাবে ব্যবহার করবেন।
  • ২৪। স্লাইড শো ও অন্যান্য ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে কিছু সিক্রেট টিপস এন্ড ট্রিক্স।
  • ২৫। এম সি এন (Multi Channel Network) সম্পর্কে সঠিক ধারণা নিতে হবে।

কীভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবে

বর্তমানে পার্সোনাল ইউটিউব চ্যানেল এবং কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানের নামে (Brand) ইউটিউব চ্যানেল এই দুই ধরনের ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করা যায়। আপনি যে ধরনের ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করুন না কেন, উভয় ক্ষেত্রেই চ্যানেল তৈরি করার নিয়ম প্রায় একই রকম। একটি ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করার জন্য আপনাকে কিছু সহজ ধাপ অনুসরন করতে হবে । ধাপ গুলো নিচে দেওয়া হল –

স্টেপ-১: গুগল একাউন্টে লগইন

একটি ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করার জন্য আপনার একটি জিমেইল আইডি অবশ্যই থাকতে হবে। ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করার জন্য সবার প্রথমে আপনার জিমেইল আইডি ব্যবহার করে গুগল একাউন্টে সাইনইন করুন।

ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করার জন্য প্রথমে আপনার ল্যাপটপ বা কম্পিউটার থেকে যে কোন একটি ব্রাউজার অপেন করে ইউটিউবের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট youtube.com এ ভিজিট করতে হবে।

ইউটিউব অফিশিয়াল ওয়েবসাইট

এখন আপনার গুগল একাউন্টে সাইনইন করার জন্য স্ক্রিনের উপরের ডান পাশে Sign In বাটনে চাপ দিতে হবে। Sign In বাটনে ক্লিক করার সাথে সাথে গুগল একাউন্টে Sign In করার অপশন দেখতে পারবেন। এই পর্যায়ে আপনার জি মেইল আইডি ও পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে আপনার গুগল একাউন্টে লগ ইন করতে হবে।

গুগল একাউন্টে সাইনইন

স্টেপ-২: ব্যক্তিগত ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

লগইন করার পর নিচের চিত্রের মত করে আপনার ইউটিউব চ্যানেল খোলার কাজ স্টার্ট করতে হবে।

ইউটিউব চ্যানেল খোলা

এখানে উপরের চিত্রের মত ১নং অংশে ক্লিক করলে ২নং অংশটি ওপেন হবে। উপরের চিত্রের ২নং অংশের Create Channel এ ক্লিক করে ইউটিউব চ্যানেল খোলার কাজ স্টার্ট করবেন।

ইউটিউব চ্যানেল খোলা

একটি ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করার জন্য Get Started বাটনটিতে চাপ দিন। Get Started এ ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে নিচের চিত্রের মত দেখতে পাবেন।

ইউটিউব চ্যানেল খোলা

উপরের চিত্রে দুটি অপশন প্রদর্শিত হচ্ছে । চিত্রের ১ নাম্বার সিলেক্ট করে ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করলে আপনার গুগল একাউন্টে যে নাম রয়েছে ঠিক সেই নামেই ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট হবে। আর যদি ২নং সিলেক্ট করে ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করলে আপনার পছন্দমত যেকোন নাম দিয়ে চ্যানেল তৈরি করতে পারবেন। ২নং অংশ নির্বাচন করে ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করার জন্য আমি রিকমেন্ড করব।

ইউটিউব চ্যানেল খোলা

উপরের চিত্রে দেখুন, এখানে ১নং অংশে আপনার চ্যানেলের নাম লিখুন। এরপর ২নং অংশে টিক চিহ্ন দিয়ে ৩নং অংশের Create বাটনে চাপ দিলেই আপনার একটি ব্যক্তিগত ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট হয়ে যাবে।

স্টেপ-৩: Brand ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

আপনার যদি আগে থেকেই কোন ইউটিউব চ্যানেল থেকে থাকে তাহলে অন্য আরেকটি ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করার জন্য Brand Account ব্যবহার করে ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করতে হবে। একাধিক ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করার জন্য সবার প্রথমে আপনার বর্তমান ইউটিউব চ্যানেলে লগইন করুন।

Brand ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

আপনার আগের কোন ইউটিউব চ্যানেল থাকলে উপরের চিত্রের ১নং অংশের গোলাকার বৃত্তটিতে চাপ দিন। এরপর ২নং অংশের Settings অপশনে ক্লিক করুন। Settings অপশন এ ক্লিক করার পর নিচের চিত্রের মত অপশনগুলো প্রদর্শিত হবে।

Brand ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

এরপর উপরের চিত্রের Add or Manage Your Channel অপশনে ক্লিক করতে হবে। Add or Manage Your Channel অপশনে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনি আপনার যতগুলো ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে সবগুলো দেখতে পাবেন।

Brand ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

এখন উপরের চিত্রে দেখুন আমার ইউটিউব একাউন্টের সবগুলো চ্যানেল এইখানে প্রদর্শিত হচ্ছে। এখন আপনি সম্পূর্ণ নতুন একটি ইউটিউব চ্যানেল ওপেন করার জন্য উপরের চিত্রের বাম পাশে থাকা Create a New Channel এ চাপ দিয়ে আপনার নতুন ইউটিউব চ্যানেল খোলা স্টার্ট করতে হবে। এরপর আপনি যে নামে নতুন ইউটিউব চ্যানেল খুলতে চান সেই নামটি লিখে Create বাটনে চাপ দিলেই আপনার Brand ইউটিউব চ্যানেল টি তৈরি হয়ে যাবে ।

ইউটিউব বা ইউটিউব ভিডিও – বিডিটেকটিউনার

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment