ইমোজি কী ? জনপ্রিয় ১০০ টি ইমোজির অর্থ

বর্তমানে প্রায় সবার হাতেই স্মার্ট ফোন রয়েছে, যা মানুষ তাদের বিভিন্ন ধরনের কাজে ব্যবহার করে । বিভিন্ন কাজের পাশাপাশি, মোবাইল এখন বিনোদনেরও একটি ভালো মাধ্যম । এখন প্রায় সবাই তাদের স্মার্ট ফোনে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন । আর আমরা যারা এই ধরনের সোশ্যাল মিডিয়াগুলো ব্যবহার করি তারা প্রায় সবাই চ্যাট করার সময় ইমোজি ব্যবহার করি । বর্তমান সময়ে আমাদের মোবাইলে হাজার হাজার রকমের ইমোজি পাওয়া যায়, যা আমরা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে চ্যাট বা পোস্ট করার সময় ব্যবহার করি । কিন্তু আপনারা কি জানেন ইমোজি কী অথবা ইমোজি এর অর্থ কি ? তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে, ইমোজি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করব ।

আমাদের স্মার্ট ফোনে একে অপরের সাথে কথা বলা বা মত বিনিময় করার জন্য অনেকগুলি অপশন রয়েছে, যেমন- আমরা ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ বা নরমাল মেসেজ ব্যবহার করি । আর আমরা এই সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া তে চ্যাট করার সময় ইমোজি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করি । 

ইমোজি কী – ইমোজি কাকে বলে ?

আমি যদি সহজ ভাষায় বলি, তাহলে ইমোজি হল এক ধরনের ছোট গ্রাফিক্যাল ছবি বা আইকন, যার সাহায্যে আমরা আমাদের আবেগ প্রকাশ করতে পারি ।

ইমোজি শব্দটি, দুটি শব্দ E এবং Moji নিয়ে গঠিত । জাপানি ভাষায়, E অর্থ হল ” ছবি ” এবং মোজি মানে হল ” অক্ষর “। এজন্য ইমোজিকে সচিত্র বার্তাও বলা হয় ।

আবার আমরা এটাও বলতে পারি যে, ইমোজি হল এক ধরনের ছোট ছবি, যা প্রেরকের চরিত্র বা আবেগ প্রকাশ করে ।

ইমোজির কারণে, অনলাইনে যোগাযোগ করা অনেক বেশী সুবিধাজনক হয়ে উঠেছে, কারণ টেক্সট মেসেজের মাধ্যমে আমরা আমাদের শরীরের ভাষা লিখতে পারি না ।

যেমন ধরুন, ফেসবুকে চ্যাট করার সময় আপনার কোন বন্ধু আপনাকে এমন কিছু বলল, যার কারণে আপনি খুব রেগে গেলেন ।আপনার রাগ আপনার মুখে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, কিন্তু আপনার বন্ধু সেটি দেখতে পাচ্ছে না । এমন অবস্থায়, আপনার আবেগ বা অনুভূতি প্রকাশ করার জন্য, আপনি তাকে একটি রাগের ইমোজি সেন্ড করতে পারেন । যাতে সে বুঝতে পারে যে আপনি রেগে গেছেন । ইমোজি না থাকলে আপনাকে টেক্সটের মাধ্যমে জানাতে হবে যে, আপনার রাগ হচ্ছে অথবা টেক্সটের মাধ্যমে গালি দিয়ে আপনাকে সেটি বোঝাতে হবে ।

আগে অনলাইন যোগাযোগ শুধুমাত্র টেক্সট লেখার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল । আমাদের কাছে টেক্সট ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প অপশন ছিল না, যার মাধ্যমে আমরা আমাদের আবেগকে অন্য পাশে থাকা মানুষটির কাছে প্রকাশ করতে পারি । কিন্তু ইমোজির আবির্ভাবের সাথে সাথে অনলাইনে চ্যাটিং করার পদ্ধতিতে অনেক পরিবর্তন এসেছে ।

বর্তমান সময়ে হাজার হাজার রকমের ইমোজি রয়েছে এবং এই ইমোজিগুলোর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের আবেগ প্রকাশ করা যায় ।আপনার মোবাইলে যদি কম ইমোজি থাকে তাহলে আপনি প্লে-স্টোর থেকে ইমোজি অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন, এর মধ্যে আপনি অনেক ধরনের ইমোজি পেয়ে যাবেন এবং সেগুলি আপনি চ্যাটিং এর সময় ব্যবহারও করতে পারবেন ।

আমাদের মোবাইলে অনেক ধরনের ইমোজি রয়েছে, যেমন- মজার ইমোজি, হাসির ইমোজি, দুঃখের ইমোজি, রাগান্বিত ইমোজি, প্রাণী, ফল, সবজি, টুলস, প্রতিক্রিয়া ইত্যাদি। বর্তমানে ইমোজির ক্রেজ এতটাই বেড়ে গেছে যে, এটি এখন আমাদের স্মার্টফোনের কীবোর্ডের একটি অংশ হয়ে গেছে । 

আরও পড়ুনঃ পাইথন কি ? পাইথন কীভাবে কাজ করে ?

ইমোজি কে আবিষ্কার করেন ?

প্রথম ইমোজিটি ১৯৯৯ সালে জাপানি শিল্পী শিগেতাকা কুরিতা তৈরি করেছিলেন । তিনি জাপানের মেইন মোবাইল ক্যারিয়ার, DoCoMo-এর প্রাইমারী মোবাইল ইন্টারনেট প্ল্যাটফর্ম “i-mode” এর ডেভেলপমেন্ট টিমে কর্মরত ছিলেন ।

Shigetaka Kurita, তথ্য আদান প্রদানের জন্য একটি সহজ, সংক্ষিপ্ত এবং একটি আকর্ষণীয় ইন্টারফেস ডিজাইন করতে চেয়েছিলেন । উদাহরণস্বরূপ, আজকের আবহাওয়া কেমন তা বলার জন্য, টেক্সট না লিখে একটি আইকনের মাধ্যমে তা বোঝানো ।

এরপর শিগেতাকা কুরিতা, 12px বাই 12px আকারের একটি চিত্রের সেট স্কেচ করে । যা আই-মোড ইন্টারফেসের কীবোর্ডে সেট করা হয় এবং সেগুলোকে মোবাইলের মাধ্যমে পৃথক অক্ষর হিসাবে পাঠানো যেতে পারে ।

কুরিতার তৈরি ওরিজিনাল 176 ইমোজিগুলি এখন, নিউ ইয়র্কের মিউজিয়াম অফ মডার্ন আর্ট-এ স্থায়ী সংগ্রহের অংশ ।

কুরিতার তৈরি ইমোজিগুলোতে, আবহাওয়া (সূর্য, মেঘ, ছাতা, তুষারমানব), ট্রাফিক (গাড়ি, ট্রাম, বিমান, জাহাজ), টেকনোলোজি (ল্যান্ডলাইন, সেল ফোন, টিভি, গেমবয়) এবং চাঁদের বিভিন্ন পর্যায় দেখানোর জন্য অক্ষর ছিল ।

ডোকোমো কোম্পানির এই ধারণাটি, তাদের মেইন প্রতিদ্বন্দ্বী মোবাইল কোম্পানি কপি করায়, ইমোজি খুব দ্রুত জাপানে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে । এবং আমরা সবাই জানি যে, যখন কোন কিছু কপি করা হয় বা কোন ধারণা অনুলিপি করা হয়, তার মানে হল সেই জিনিসটি অনেক বেশী জনপ্রিয় ।

মোবাইল কম্পিউটিংয়ের বিস্ফোরণ ২০০০ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত অব্যাহত ছিল, যখন অ্যাপেলের মতো জাপানের বাইরের কোম্পানিগুলি অন্যান্য প্ল্যাটফর্মের জন্য ইমোজি আনার চেষ্টা করছিল ।

ইমোজির বিবর্তন – ইমোজির ইতিহাস

১৯৯৯ সালে জাপানি শিল্পী শিগেতাকা কুরিতা প্রথম ইমোজি তৈরি করেন । সেই সময়ে আবহাওয়া (সূর্য, মেঘ, ছাতা, তুষারমানব), টেকনোলোজি, ট্রাফিক এবং সময়ের জন্য আইকনের কয়েকটি সেট ছিল ।

২০১০ সালে ইউনিকোড, আনুষ্ঠানিকভাবে ইমোজিকে একসেপ্ট করে এবং এতে তারা অনেক ধরনের নতুন ইমোজি যোগ করে, যেমন বিড়ালের মুখ আবেগ (আনন্দ), রাগ (রাগ) এবং অশ্রু (অশ্রু) ইত্যাদি ।

২০১৫ সালে ইমোজিতে একটি বৈচিত্র্যময় আপডেট নিয়া আসা হয় । যার মধ্যে ৫ টি নতুন ধরনের স্কিন টোন এবং সমকামী দম্পতির একটি সেট ইমোজিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয় ।

২০১৬ সালে আরও অনেক ধরনের নতুন ইমোজি যোগ করা হয়, যেমন সিঙ্গেল ড্যাড, প্রাইড পতাকা এবং ভারোত্তোলন মহিলা ইত্যাদি ।

২০১৭ সালে নতুন ইমোজি প্রস্তাব করা হয়েছিল । এতে অনেক ধরনের ভাষা ও সংস্কৃতিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল এবং ইমোজির বিভিন্ন ধরনের চরিত্র সম্পর্কে তথ্য জানানো হয়েছিল । যেমন- একটি মশা, যা ম্যালেরিয়া বা জিকা রোগকে প্রতিনিধিত্ব করে ।

এখানে ইমোজি তৈরি হওয়ার পর থেকে বড় বড় আপডেটগুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে । বর্তমানে ইমোজিতে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আপডেট আসছে এবং সেই সাথে নতুন নতুন ক্যারেক্টার ইমোজি তৈরি করা হচ্ছে ।

কোন কোম্পানি আন্তর্জাতিকভাবে প্রথম ইমোজি চালু করেছে ?

ইন্টারন্যাশনাল ভাবে প্রথমবারের মতো ইমোজি তৈরি করেছে অ্যাপল ইনকর্পোরেটেড  এর আগে শুধুমাত্র জাপানি গ্রাহকদের আকৃষ্ট করার জন্য এই ইমোজি বৈশিষ্ট্যটি অন্তর্ভুক্ত ছিল । তবে অন্যান্য দেশের ব্যবহারকারীরাও এই বৈশিষ্ট্যটি সম্পর্কে জানতে পেরে যায় এবং মানুষ এটিকে অনেক বেশী পছন্দ করতে শুরু করে । তাই বাধ্য হয়ে প্রতিষ্ঠানটি আনুষ্ঠানিকভাবে সারা বিশ্বের মানুষের জন্য ইমোজি উন্মুক্ত করার ঘোষণা দেয় ।

অনেক মানুষ তার নিজের জন্য ইমোজি তৈরি করতে চান এবং আপনি চাইলেও আপনার নিজের জন্য ইমোজি তৈরি করতে পারবেন । অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস প্ল্যাটফর্মে এমন অনেক অ্যাপ এবং সফটওয়্যার রয়েছে , যার সাহায্যে আপনি নিজের জন্য ইমোজি তৈরি করতে পারেন ।

ইমোজি সম্পর্কিত কিছু মজার তথ্য

  • ইমোজি ১৯৯৯ সালে জাপানে প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল ।
  • ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস পালিত হয় । প্রথমবার বিশ্ব ইমোজি দিবস ২০১৪ সালের ১৭ জুলাই পালন করা হয়েছিল এবং এরপর থেকে এটি প্রতি বছর ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস পালন করা হয় ।
  • একটি পরিসংখ্যান অনুসারে, ২০১৩ সালে ৬০০ কোটিরও বেশি ইমোজি ইউজ করা হয়েছিল । স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাই আপনি নিশ্চই বুঝতে পারছেন যে, বর্তমানে কি পরিমাণ ইমোজি ইউজ করা হচ্ছে ।
  • যে সমস্ত প্ল্যাটফর্মে আপনি ইমোজি ইউজ করেন, সেখানে ইমোজির স্টাইল, টেক্সচার সামান্য একটু আলাদা, কারণ প্রতিটি ইমোজির ডিজাইন কোড সেই প্ল্যাটফর্মের সিস্টেমে আগে থেকেই সেট করা ।
  • ফেসবুক বা হোয়াটসঅ্যাপ নয়, ইমোজি ইউজ করা প্রথম সোশ্যাল মিডিয়া সাইট হল টুইটার ।
  • সাম্প্রতিক একটি আপডেট অনুসারে, সর্বমোট ৩৫২১ টি ইমোজি আনুষ্ঠানিকভাবে ইন্টারনেটে এসেছে ।
  • টুইটারে, ইমোজিতে ক্লিক করে, আপনি সেই ইমোজি ইউজ করা হচ্ছে এমন সমস্ত টুইটগুলো দেখতে পারেন ।
  • ২০১৩ সালের আগে ডিকশনারিতে ইমোজি নামে কোন শব্দ ছিল না, কিন্তু ২০১২-২০১৩ সালের দিকে, ইমোজি এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল যে, ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে ইমোজি শব্দটি অক্সফোর্ড ডিকশনারিতে যোগ করা হয়েছিল ।
  • ২০১৪ সালে, ইমোজি প্রথম সোশ্যাল সাইটে ইউজ করা হয়েছিল ।
  • ইমোজির জনপ্রিয়তা দেখে, Apple ২০১১ সালে একটি অফিসিয়াল ইমোজি কীওয়ার্ড চালু করে ।
  • জন্মদিনের কেক এবং পিৎজার ইমোজি, খাবারের ইমোজির মধ্যে সারা বছর সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় ।
  • প্রায় ৫০% টুইটার পোস্টে ইমোজি ইউজ করা হয় ।
  • ২০১৩ সালে অ্যান্ড্রয়েড কোম্পানিগুলি তাদের সেল ফোনে এই ইমোজি ফিচার অন্তর্ভুক্ত করে।
  • সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইমোজির নাম হল ” Tears of Joy বা আনন্দের অশ্রু ” 😂
  • ২য় সর্বাধিক ব্যবহৃত ইমোজি হল ” স্মাইলিং ফেস উইথ হার্ট-আইজ ” এবং ৩য় টির নাম হল “রেড হার্ট” ️।
  • সারা বিশ্বে প্রতিদিন প্রায় ৫ বিলিয়ন+ ইমোজি পাঠানো হয় ।
  • ফেসবুকে প্রতিদিন প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ইমোজি পাঠানো হয় ।
  • পৃথিবীতে প্রতিদিন প্রায় ৯০০ মিলিয়ন ইমোজি কোন ধরনের টেক্সট ছাড়াই পাঠানো হয় ।
  • প্রতিটি ইমোজি অক্ষরের একটি ইউনিক এবং অফিসিয়াল ইউনিকোড নাম রয়েছে, যা এটিকে অন্য ইমোজি থেকে আলাদা করে ।
  • প্রথম অ্যানিমেটেড ইমোজি ইউজ করা হয় অ্যাপলে ।
আরও পড়ুনঃ লিনাক্স কি ? লিনাক্স কিভাবে কাজ করে ?

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইমোজি

  1. 😂 আনন্দের অশ্রুতে মুখ
  2. 😍 হৃদয়-চোখে হাসিমুখ
  3. 🥰 তিনটি হৃদয় সহ হাসিমুখ
  4. ❤️ লাল হৃদয়
  5. 😀 হাসিমাখা মুখ
  6. 😎 সানগ্লাস সহ হাসিমুখ
  7. 🎉 পার্টি পপার
  8. 😊 হাস্যোজ্জ্বল চোখ সহ হাস্যোজ্জ্বল মুখ
  9. 👍 থাম্বস আপ
  10. 💩 পায়ের গাদা
  11. 😭 উচ্চস্বরে কাঁদছে মুখ
  12. 😘 মুখ চুম্বন করছে
  13. 🤣 হাসতে হাসতে মেঝেতে গড়াগড়ি দেওয়া
  14. 🙏 প্রার্থনা জানানো, ধন্যবাদ জানানো এবং কিছু ক্ষেত্রে হাই-ফাইভ দেওয়া

ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইমোজি কোনটি

  1. 😂 আনন্দের অশ্রুতে মুখ
  2. 😍 হৃদয়-চোখে হাসিমুখ
  3. 😘 মুখে চুমু খাচ্ছে
  4. 🎂 জন্মদিন
  5. ❤️ লাল হৃদয়
  6. 😊 হাস্যোজ্জ্বল চোখ সহ হাস্যোজ্জ্বল মুখ

ইমোজির সুবিধা

  • আমরা ইমোজির মাধ্যমে আমাদের প্রতিটি আবেগ এবং অনুভূতি প্রকাশ করতে পারি
  • ইমোজিতে প্রতিটি অনুভূতি প্রকাশ করার জন্য বিভিন্ন ধরণের মুখ বা অবয়ব তৈরি করা হয়, যা সেই ইমোজি পাঠানো ব্যক্তির অঙ্গভঙ্গি জানতে এবং বুঝতে সাহায্য করে ।
  • ইমোজির ক্ষেত্রে কোন কিছু লেখার প্রয়োজন হয় না । 

ইমোজি বনাম ইমোটিকন

ইমোটিকনস এর পূর্ণরূপ বা ফুল ফর্ম হল ইমোশনাল আইকন । ইমোকিটন তৈরি করতে বিরাম চিহ্ন, অক্ষর এবং সংখ্যাব্যবহার করা হয়, যা সাধারণত কোন আবেগ বা অনুভূতি প্রদর্শন করে ।

অন্যদিকে ইমোজি শব্দের অর্থ হল সচিত্র বার্তা । আপনি নিশ্চয়ই আপনার স্মার্টফোনে বিভিন্ন ধরনের ইমোজি দেখেছেন । হলুদ রঙের বিভিন্ন অভিব্যক্তি সহ কার্টুনের মুখ ।

সুতরাং আপনি যদি এমন একটি হাস্যোজ্জ্বল মুখ বা অবয়বের মুখোমুখি হন, যার মধ্যে কোন অক্ষর বা চিহ্ন রয়েছে, তবে জেনে রাখুন যে সেই হাস্যোজ্জ্বল মুখটি একটি ইমোটিকন । অন্যদিকে, যদি আপনি একটি ছোট কার্টুন চিত্র দেখতে পান, যেখানে কোনো রকম চিহ্ন, সংখ্যা বা অক্ষর নেই, তবে জেনে রাখুন এটি হল একটি ইমোজি ।

বিশ্ব ইমোজি দিবস

উইকিপিডিয়া থেকে আমরা যেমন বিভিন্ন ধরনের ইনফরমেশন পাই, ঠিক তেমনি আমরা ইমোজিপিডিয়াতে বিভিন্ন ধরনের ইমোজি সম্পর্কে ইনফরমেশন পেতে পারি । প্রকৃতপক্ষে, ২০১৪ সালে, ইমোজিপিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা জেরেমি বার্গ বিশ্ব ইমোজি দিবস উদযাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, যার ফলশ্রুতিতে, ২০১৪ সাল থেকে প্রতি বছর ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস উদযাপন করা শুরু হয় ।

প্রতি বছর ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস পালিত হয় ।

ইমোজির ভবিষ্যৎ কী ?

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে যে, ইমোজির ভবিষ্যৎ কী । ভবিষ্যতে কি ইমোজির ব্যবহার আরও বাড়বে, নাকি মানুষ এটি ইউজ করা বন্ধ করবে? আপনি নিজেই এই বিষয়টি একবার চিন্তা করুন –

ধরুন, আপনি যখন কারো সাথে চ্যাটিং করছেন বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কোন কিছু পোস্ট করছেন তখন আপনি কতটা ইমোজি করেন । আজ আমরা প্রায় সবাই ইমোজি ইউজ করি । আর যে জিনিসটা মানুষ অনেক বেশি ইউজ করে বা যখন কোনো কিছু অনেক বেশী জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, তখন এর সাথে রিলেটেড প্রতিষ্ঠানগুলো সেটি নিয়মিত আপগ্রেট করার দিকে বিশেষ মনোযোগ দেয় ।

ইমোজির মাধ্যমে, আমরা সহজেই আমাদের অনুভূতি এবং অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে পারি । যেমন আমরা কোন বিষয়ে খুশি হয়েছি এটা বোঝাতে আমরা হাসির ইমোজি ইউজ করি, আবার যদি আমরা কোন বিষয়ে কাঁদছি বা দুঃখ পেয়েছি সেটি বোঝাতে আমরা দুঃখের ইমোজি ইউজ করি । আর এই সব অনুভুতিগুলো আপনি লিখে কোনভাবেই বোঝাতে পারবেন না । তাই আমরা বলতেই পারি যে, ইমোজি কখনই থামবে না এবং প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ধরনের ইমোজি আসতেই থাকবে । 

১০০ টি ইমোজির অর্থ

ইমোজি নাম নামের মানে
😂 Face with Tears of Joy ভীষন খুশি হওয়া বা অতিরিক্ত খুশি হওয়া
Red Heart ভালোবাসা প্রকাশ করতে
😍 Smiling Face with Heart-Eyes কোনো কিছু পছন্দ হওয়া বোঝায়
🤣 Rolling on the Floor Laughing  অতিরিক্ত আনন্দ পাওয়া বা ভীষণ আনন্দ পাওয়া
😊 Smiling Face with Smiling Eyes খুশি হওয়া
🙏 Person with Folded Hands ধন্যবাদ জানানো, প্রার্থনা জানানো এবং কিছু ক্ষেত্রে হাই-ফাইভ দেওয়া, আবার অনেকে ক্ষমা চাওয়ার ক্ষেত্রেই এই ইমোজি ইউজ করে
💕 Two Hearts রোম্যান্স কিংবা ভালোবাসার প্রকাশ করতে
😭 Loudly Crying Face দুঃখে কেঁদে ফেলা
😘 Face Throwing a Kiss কারোর উদ্দেশ্যে চুম্বন প্রদর্শন করা
👍 Thumbs Up Sign গুড-লাক জানানো বা বাহবা দেওয়া
😅 Smiling Face with Open Mouth and Cold Sweat বিচলিত হওয়া বা অপ্রস্তুত হওয়া
👏 Clapping Hands Sign হাততালি দেওয়া বা ক্ল্যাপ্স
😁 Grinning Face with Smiling Eyes খুশিতে উৎফুল্ল হওয়া
🔥 Fire অসাধারন বোঝাতে
💔 Broken Heart ভগ্ন হৃদয় বা প্রেম ভেঙ্গে গেছে
💖 Sparkling Heart বিশেষভাবে ভালোবাসা জানানো
😢 Crying Face দুঃখ পাওয়া
🤔 Thinking Face কোনো ব্যাপারে চিন্তা-ভাবনা করা
😆 Smiling Face with Open Mouth and Tightly-Closed Eyes প্রচন্ড উত্তেজনা বা আনন্দ বোঝায়
🙄 Face With Rolling Eyes ব্যাঙ্গ করতে কিংবা একঘেয়েমি বোঝায়
💪 Flexed Biceps ফিটনেস কিংবা শক্তি বোঝায়
😉 Winking Face মজা করা বোঝায়
Smiling Face হাসিখুশি বোঝায়
👌 OK Hand Sign ওকে কিংবা খুব ভালো বোঝায়
🤗 Hugging Face আলিঙ্গন করা বোঝায়
😔 Pensive Face বিষাদ বোঝায়
😎 Smiling Face with Sunglasses আত্মবিশ্বাসী বোঝায়
😇 Smiling Face with Halo নিষ্পাপ বোঝায়
🌹 Rose রোম্যান্স বোঝায়
🤦 Face Palm আশাহত বোঝায়
🎉 Party Popper অভিনন্দন কিংবা উদযাপন বোঝায়
💞 Revolving Hearts ভালোবাসার চক্রবূহ্য বোঝায়
Victory Hand শান্তি কিংবা সাফল্য বোঝায়
Sparkles উৎসব বোঝায়
🤷 Shrug অজানা জিনিস বোঝায়
😱 Face Screaming in Fear ভয় পাওয়া কিংবা অবাক হওয়া বোঝায়
😌 Relieved Face শান্ত বোঝায়
🌸 Cherry Blossom বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়
🙌 Person Raising Both Hands in Celebration হাই-ফাইভ
😋 Face Savoring Delicious Food কোনো খাদ্য উপভোগ করা
😏 Smirking Face দুষ্টুমির ইমোজি
🙂 Slightly Smiling Face অল্প খুশি দেখানো
🤩 Grinning Face with Star Eyes উৎসাহিত
😄 Smiling Face with Open Mouth and Smiling Eyes অন্তর থেকে খুশি
😀 Grinning Face মুড ভালো করা দেওয়া খুশি
😃 Smiling Face with Open Mouth সুখী
💯 Hundred Points Symbol ১০০%
🙈 See-No-Evil Monkey লজ্জা পাওয়া
👇 Backhand Index Pointing Down নীচের দিকে দেখানো
🎶 Multiple Musical Notes সংগীত
😒 Unamused Face বিরক্ত হওয়া
🤭 Smiling Face with Smiling Eyes and Hand Covering Mouth মুখ চাপা দিয়ে হাসা
Heavy Heart Exclamation Mark Ornament জোর দিয়ে ভালোবাসা বোঝানো
Heavy Exclamation Mark Symbol বিস্ময় প্রকাশ করতে
😜 Face with Stuck-Out Tongue and Winking Eye মজা করা
💋 Kiss Mark চুম্বন
👀 Eyes চুপি চুপি বোঝানো
😪 Sleepy Face ক্লান্ত
😑 Expressionless Face একঘেয়েমি কিংবা বিরক্তিকর হতাশা বোঝায়
💥 Collision Symbol বিস্ফোরণ বোঝাতে
🙋 Happy Person Raising One Hand হাত তোলা বোঝায়
😞 Disappointed Face গভীর দুঃখ, হতাশা বোঝায়
😩 Weary Face কষ্ট বোঝায়
😡 Pouting Face রেগে যাওয়া বোঝায়
🤪 Grinning Face with One Large and One Small Eye বোকামো বোঝায়
👊 Fisted Hand Sign ঘুষি মারা বোঝায়
Sun সূর্য
😥 Disappointed but Relieved Face টেনশন বোঝায়
🤤 Drooling Face লোভ বোঝায়
👉 Backhand Index Pointing Right ডান দিকে দেখানো
💃 Dancer খুশিতে নাচ করা বোঝায়
😳 Flushed Face ভীষন অবাক বোঝায়
Raised Hand দাঁড়াতে বলা বোঝায়
😚 Kissing Face With Closed Eyes চুম্বন দেওয়া বোঝায়
😝 Face with Stuck-Out Tongue and Tightly-Closed Eyes মজা করা বোঝায়
😴 Sleeping Face ক্লান্ত কিংবা ঘুমন্ত বোঝায়
🌟 Glowing Star উদযাপন
😬 Grimacing Face গোলমেলে ব্যাপার বোঝায়
🙃 Upside Down Face ব্যঙ্গ বা বোকামো বোঝায়
🍀 Four Leaf Clover গুড লাক বোঝায়
🌷 Tulip বিশেষ ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।
😻 Smiling Cat Face with Heart-Shaped Eyes বিড়াল প্রেমীদের জন্য ভালোবাসা প্রকাশের ইমোজী।
😓 Face with Cold Sweat দুঃখিত
Star কোনো কিছুর রেটিং দিতে বোঝায়
Check Mark Button কোনো কিছু হয়ে যাওয়া বোঝায়
🌈 Rainbow মন ভালো বোঝায় কিংবা সমকামী ভালোবাসা বোঝায়
😈 Smiling Face With Horns বদমায়েশি বোঝায়
🤘 Sign of the Horns রক অন কিংবা পার্টি শুরুর ইঙ্গিত বোঝায়
💦 Splashing Sweat Symbol তরল পদার্থ বোঝায়
Check Mark অনুমোদন করা বোঝায়
😣 Persevering Face কষ্টসাধ্যতা বোঝায়
🏃 Runner দৌড়ানো
💐 Bouquet অভিনন্দন জানানো হয়
Frowning Face দুঃখিত কিংবা চিন্তাগ্রস্থ
🎊 Confetti Ball অভিনন্দন
💘 Heart With Arrow কিউপিড
😠 Angry Face রাগী
Index Finger Pointing Up এক নাম্বার বোঝানো কিংবা ওপরের দিকে বোঝানো
😕 Confused Face হতাশা
🌺 Hibiscus জবা ফুল

শেষ কথা

বর্তমানে আমরা প্রতিদিন চ্যাটিং করার সময় বিভিন্ন ধরনের ইমোজি ব্যবহার করি । আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে ইমোজি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি এবং সেই সাথে বর্তমানে বহুল ব্যবহৃত কিছু ইমোজি এর অর্থ আপনাদের সাথে শেয়ার করার চেষ্টা করেছি । আর্টিকেলটি নিয়ে যে কোন ধরনের প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানান ।

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment