ওয়্যারলেস চার্জিং কি ? এটি কীভাবে কাজ করে ?

আপনারা নিশ্চয়ই ওয়্যারলেস চার্জিং সম্পর্কে শুনেছেন । কারণ বর্তমান সময়ের অনেক স্মার্টফোন চার্জ করার জন্য এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে । বাজারে ধীরে ধীরে ওয়ারলেস চার্জিংয়ের ( Wireless Charging ) জনপ্রিয়তা বেড়ে চলেছে । কিন্তু আপনি কি জানেন এই ওয়্যারলেস চার্জিং কি? এবং ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি কিভাবে কাজ করে? আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা জানতে পারবেন ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি কি? এটা কিভাবে কাজ করে? আর কোন তার ছাড়াই কিভাবে ফোন চার্জ হয়? 

ওয়্যারলেস চার্জিং

আমরা যখন দেখি ওয়্যারলেস চার্জারের সাহায্যে, কোন ধরনের তাঁরের সংযোগ ছাড়াই ফোন চার্জ হচ্ছে তখন এটা আমাদের কাছে জাদুর মত মনে হয় । কারণ এখন পর্যন্ত আমরা শুধু তারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ চলাচল করতে দেখেছি । কিন্তু ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তিতে কোন ধরনের ওয়্যার বা তার ব্যবহার করা হয় না । তাই কোনো তার ছাড়া ফোন চার্জ করার বিষয়টি আমাদের অবাক করে । এবং সেই সাথে আমাদের মনে অনেক ধরনের প্রশ্ন জাগে । যেমন তার ছাড়া কারেন্ট কিভাবে ব্যাটারিতে যায়? কারেন্ট কি বাতাসের মাধ্যমে যায় ? যদি তাই হয়, তাহলে আমরা ফোন বা চার্জার স্পর্শ করলে শক খাই না কেন ইত্যাদি ।

কিন্তু আমরা যখন এসব প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করি তখন আমরা কোন সোজা বা সহজ উত্তর পাই না । কারণ এটি একটি জটিল প্রযুক্তিগত বিষয় । কিন্তু একজন সাধারণ মানুষের পক্ষে এ ধরনের জটিল পরিভাষা বোঝা খুবই কঠিন । সেজন্য আমি আপনাদের সহজ ভাষায় বোঝানোর চেষ্টা করব । যাতে আপনারা খুব সহজেই বিষয়টি বুঝতে পারেন ।

ওয়্যারলেস চার্জিং কি ?

ওয়্যারলেস চার্জিং হল তার বা ক্যাবল ছাড়াই পাওয়ার ট্রান্সফার করার একটি প্রযুক্তি । যা ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ইন্ডাকশনের মাধ্যমে কাজ করে । অর্থাৎ, এতে শক্তি স্থানান্তর করার জন্য ম্যাগনেটিক ফিল্ড বা চৌম্বক ক্ষেত্র ব্যবহার করা হয় ।আর তাই ফোনকে চার্জ করার জন্য কোন ধরনের তার বা তারের সাথে সংযোগ করার প্রয়োজন পরে না । ফোনকে চার্জিং প্যাডের উপরে রাখার সাথে সাথেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে চার্জ হতে শুরু করে । এজন্য একে ওয়্যারলেস চার্জিং বলা হয় । Wireless Charging, ইন্ডাকটিভ চার্জিং এবং কর্ডলেস চার্জিং নামেও পরিচিত । এবার আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, ওয়্যারলেস চার্জিং কীভাবে কাজ করে? তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক ।

আরও পড়ুনঃ সেন্সর কি? আমাদের ফোনের সেন্সরগুলো কি কি?

ওয়্যারলেস চার্জিং কিভাবে কাজ করে ?

ইন্ডাকটিভ চার্জিং কৌশলের আধুনিক সংস্করণই হচ্ছে বর্তমানের ওয়্যারলেস চার্জিং টেকনোলোজি । উনবিংশ শতকের শেষের দিকে বিজ্ঞানীরা ইন্ডাকটিভ চার্জিং কৌশল আবিষ্কার করেন । তবে, ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি সফল ও বাণিজ্যিকভাবে মানুষের হাতে এসেছে অল্প কিছুদিন আগে ।

ওয়ারলেস চার্জিং কীভাবে কাজ করে তা বুঝতে হলে, প্রথমে আমাদের ইন্ডাক্টিভ চার্জিং এর মৌলিক কলাকৌশল সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। ইন্ডাক্টিভ চার্জিং মূলত, তড়িৎ পদার্থবিজ্ঞানের একটি অন্যতম সূত্র ওয়েরস্টেড ‘ল এর উপর ভিত্তি করে কাজ করে ।

কোন বস্তু বা তারের মধ্য দিয়ে যখন বিদ্যুৎ প্রবাহিত হয়, তখন এর চারপাশে একটি ম্যাগনেটিক ফিল্ড তৈরি হয় । এখন আপনি যদি এই বৈদ্যুতিক তারকে সোজা ভাবে না রেখে গোল করে পেচিয়ে কয়েল তৈরী করেন, তাহলে আরও বেশী শক্তিশালী ম্যাগনেটিক ফিল্ড তৈরী হবে ।

এরকম কয়েলেরই ছোট একটা ভার্শন ওয়ারলেস চার্জিং প্যাডের ভেতরে ব্যবহার করা হয় । যেটা বিদ্যুৎ প্রবাহ অর্থাৎ কারেন্টকে তড়িৎচৌম্বকীয় ক্ষেত্রে রূপান্তরিত করে ফেলে ।

তবে, এই তড়িৎচৌম্বকীয় ক্ষেত্রের উপরে কোন ব্যাটারি রাখলেই যে, তা চার্জ হওয়া শুরু হবে বিষয়টা এমন নয় । এজন্য বিশেষ এক ধরণের রিসিভার প্রয়োজন হয় যা তড়িচৌম্বকীয় ক্ষেত্র থেকে শক্তি শুষে নিয়ে সেটা পুনরায় কারেন্টে রূপান্তরিত করতে পারে । আর রিসিভার ডিভাইসেও এই ট্রান্সফরমেশনের কাজটি করে থাকে একটি কয়েল ।

ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি মূলত ২ টি অংশে কাজ করে । প্রথম অংশটি একটি চার্জিং স্টেশন (চার্জিং প্যাড), যা পাওয়ার সাপ্লাইয়ের সাথে কানেক্টেড থাকে । এই চার্জিং প্যাড একটি ট্রান্সমিটার কয়েল নিয়ে গঠিত । আর ২য় অংশটি ফোনের ভেতরে থাকে, যা রিসিভার কয়েল হিসেবে কাজ করে । যখন এই দুটি কয়েল একসাথে মিলিত হয়, তখন সেগুলো চুম্বকত্বের সাহায্যে কম্পন শুরু করে । এর কারণে ফোনের মধ্যে থাকা কয়েলে ইএমএফ অর্থাৎ ইলেক্ট্রোমোটিভ ফোর্স তৈরি হয় । এই EMF ফোনের ভেতরে থাকা চার্জিং সার্কিটের মাধ্যমে শক্তি স্থানান্তর করে, যা ব্যাটারিকে চার্জ করে ।

ওয়্যারলেস চার্জিং একটি ব্যয়বহুল এবং অত্যন্ত জটিল প্রক্রিয়া । ওয়্যারলেসের মাধ্যমে ফোন চার্জ হতে অনেক বেশী সময় প্রয়োজন হয় । এছাড়াও, ফোন গরম হয়ে যাওয়াও একটি বড় সমস্যা । আরও একটি বড় সমস্যা হল সাধারণ তারযুক্ত চার্জারের মতো আপনি ওয়্যারলেস চার্জারের মাধ্যমে অন্য কোনো ফোন চার্জ করতে পারবেন না । কারণ ওয়্যারলেস চার্জার নির্দিষ্ট ফোন অনুযায়ী ডিজাইন করা হয় । তাই আপনি ইচ্ছা করলেই এক চার্জার দিয়ে একাধিক ফোন চার্জ করতে পারবেন না ।

ওয়ারলেস চার্জিংয়ের ফোনের ব্যাটারির ওপরে প্রভাব

ওয়ারলেস চার্জিংয়ের প্রভাব আপনার ফোনের ব্যাটারির উপর কতটা পরবে, তা নির্ভর করে আপনার ফোনের ব্যাটারির ক্ষমতা এবং ওয়ারলেস চার্জিংয়ের ( Wireless Charging)  স্পিডের ওপরে । ফোনের ব্যাটারি ভাল রাখতে চাইলে সবসময় ব্র্যান্ডেড এবং ভাল কোম্পানির ওয়ারলেস চার্জার ইউজ করা উচিত । বর্তমানে বাজারে অনেক ধরনের কম দামের ওয়ারলেস চার্জার পাওয়া যায় । কিন্তু সেগুলো ইউজ করলে তা আপনার ফোনের ব্যাটারির ওপরে খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে । যদি কেউ ৩০ ওয়াটের ওয়ারলেস চার্জার ক্রয় করে এবং কিন্তু তার ফোন সাপোর্ট করে ১৫ ওয়াটের চার্জিং স্পিড, এর ফলে তার প্রভাব পড়তে পারে ফোনের ব্যাটারির ওপরে । সেই কারণে ওয়ারলেস চার্জার ক্রয় করার আগে ফোনের চার্জিং স্পিড এবং ওয়ারলেস চার্জিংয়ের ওয়াট দেখে নেওয়া জরুরী । সঠিক ভাবে এবং ভাল ব্র্যান্ডের ওয়ারলেস চার্জার ব্যবহার করলে ফোনের ব্যাটারির ওপরে তার কোন খারাপ প্রভাব পড়ে না ।

ওয়্যারলেস চার্জার বা ফোন স্পর্শ করলে শক লাগে না কেন

এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, বিদ্যুৎ স্পর্শ করলেই আমরা শক খাই । কিন্তু ওয়্যারলেস চার্জার বা ফোন স্পর্শ করলে কেন শক লাগে না কেন ? উত্তরটা খুবই সহজ । আসলে, ওয়্যারলেস চার্জার থেকে খুব কম পাওয়ার সিগন্যাল নির্গত হয়, যার পরিসর খুব সীমিত । দ্বিতীয়ত, ওয়্যারলেস চার্জার থেকে সরাসরি বিদ্যুৎ শক্তি নির্গত হয় না । এটি থেকে চৌম্বক শক্তি নির্গত হয় । যা ফোনের ভেতরে থাকা সার্কিটের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয় । এবং তারপরে এটি ব্যাটারিকে চার্জ করে । সেজন্য ওয়্যারলেস চার্জারে হাত লাগলে শক লাগে না ।

আরও পড়ুনঃ অপারেটিং সিস্টেম কি? অপারেটিং সিস্টেম কিভাবে কাজ করে?

ওয়্যারলেস চার্জিং সমর্থন করে এমন ফোনের তালিকা

এখন প্রশ্ন হল , ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে এমন স্মার্টফোন কোনটি ? বর্তমানে ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে এমন স্মার্টফোনের সংখ্যা খুবই কম । বর্তমানে বাজারে অল্প কিছু স্মার্টফোন রয়েছে যেগুলো ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে । এর মধ্যে রয়েছে Smasung Galaxy S9, S10, S20, Note 9 এবং Note 10 series, Xiaomi Mi9, Mi9 Explorer, Mi Mix 3, Google Pixel 3/3XL, Google Pixel 4/4XL, LG G7, G8, V40, V50 এবং V60 ThinQ, iPhone 10, iPhone 11, Huawei P30, Huawei Mate 20 Pro, Sony Xperia XZ2/XZ3, ZTE Exon 10 Pro এবং Nokia 9 PureView এর মতো স্মার্টফোনগুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে৷

বর্তমানে ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি বেশ ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে এই প্রযুক্তি শুধুমাত্র হাই-এন্ড ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনেই দেখা যায় । তবে ভবিষ্যতে এটি সস্তা ফোনেও দেখা যাবে । কারণ এই প্রযুক্তি স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে একেবারেই নতুন । এছাড়াও এর অনেক ধরনের ত্রুটি রয়েছে । তবে কিছুদিন যাওয়ার পর এর খরচ উল্লেখযোগ্যভাবে কমে আসবে ।

ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের ভবিষ্যত

আমরা যদি বর্তমান সময়ের দৃষ্টিকোণ থেকে দেখি, তাহলে ওয়্যারলেস চার্জিং একটি ধীর এবং ব্যয়বহুল পদ্ধতি বলে মনে হয় ।তবে ভবিষ্যতে আমরা প্রায় সব ফোনেই এটি দেখতে পাব । কারণ স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো তাদের লেটেস্ট ফোনগুলোতে এটি ক্রমাগত ব্যবহার করার চেষ্টা করছে । আর ভবিষ্যতে এই প্রযুক্তি শুধু দামি ফোনেই নয়, বরং মিডরেঞ্জ এবং বাজেট রেঞ্জের স্মার্টফোন গুলোতেও দেখা যাবে । এই প্রযুক্তি একেবারে নতুন হওয়ার কারণে এটি এখনও ধীর এবং ব্যয়বহুল । তবে ভবিষ্যতে যখন এর আরও অনেক উন্নতি হবে তখন এটি একটি দ্রুত এবং কম ব্যয়বহুল সিস্টেমে পরিণত হবে ।

শেষ কথা

আমরা আশা করছি যে, আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা ওয়্যারলেস চার্জিং কি ? এবং এটি কিভাবে কাজ করে? এই বিষয়ে অনেক দরকারী তথ্য জানতে পেড়েছেন । আর্টিকেলটি নিয়ে যে কোন ধরনের প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানান ।

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment