কিভাবে বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকেট কিনবেন?

যারা প্রথম অথবা নতুন ট্রেন ভ্রমন করতে চাচ্ছেন, তাদের মধ্যে বেশীরভাগেরই একটা খুব সাধারণ প্রশ্ন থাকে, আর তা হল ট্রেনের টিকিট কিভাবে কাটবো অথবা কিনব? কারণ আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য বেশির ভাগ রেল ষ্টেশনে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাড়িয়ে টিকেট কাটতে হয়। কিন্তু যারা নতুন তাদের ক্ষেত্রে বিষয়টি অনেক ঝামেলার মনে হয়। অনেক ক্ষেত্রে নতুনরা দীর্ঘ লাইন পার করে কাউন্টারে যেয়ে জানতে পারে যে সে ভুল কাউন্টারে এসেছে অথবা তার কাঙ্ক্ষিত ট্রেনে সিট খালি নেই। এই ধরনের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশ রেলওয়ে অনলাইনে টিকেট কাটার সিস্টেম চালু করে। তবে বর্তমানে এই অনলাইনে ট্রেন টিকেট কেনার পদ্ধতি আরও সহজ করার লক্ষে বিকাশ অ্যাপে ট্রেন টিকেট কেনার সিস্টেম চালু করা হয়েছে। তাহলে চলুন আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জেনে নেই বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকেট কেনার পদ্ধতি।

স্থলপথে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে যাওয়ার ক্ষেত্রে ট্রেনে বা রেলপথে ভ্রমণ করা অত্যন্ত আরামদায়ক এবং অনেকাংশে নিরাপদ। ট্রেনে ভ্রমণ করলে একসঙ্গে অনেক ধরনের সুবিধা পাওয়া যায়। যেমন, যানজটের কোন রকম ঝামেলা থাকে না তাই যাতায়াতের সময় অনেক কম লাগে, একই সাথে জায়গায় জায়গায় থামার ঝামেলা না থাকায়, নিশ্চিন্তে অনেকটা পথ দুপাশের প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করতে করতে যাওয়া যায়।

আগে বাংলাদেশের রেল যোগাযোগের ব্যবস্থা বর্তমান সময়ের মত এত উন্নত ছিল না। ট্রেনের সংখ্যাও ছিল অনেক কম (বিশেষ করে মেইল ট্রেন)। তাই, মানুষ ট্রেনে যাতায়াতের ক্ষেত্রে তেমন বেশী আগ্রহী ছিল না। কিন্তু, বর্তমানে উন্নত রেললাইন ও আধুনিক ট্রেন দেশের মানুষকে ট্রেনে যাতায়াতে আগ্রহী করে তুলেছে। আর এই আগ্রহের আরও একটি কারণ হল অনলাইনে টিকেট কেনার সুবিধা।

বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকেট কাটার পদ্ধতি

আমরা সাধারনত বাংলাদেশে রেলওয়ের নির্ধারিত সাইট এবং অ্যাপ থেকে ট্রেনের টিকিট কিনে থাকি। তবে বর্তমানে আরও সহজে বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকেট কিনতে পারবেন। বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন –

  • বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য, প্রথমে আপনার বিকাশ নাম্বার এবং পিন কোড দিয়ে বিকাশ অ্যাপে লগইন করুন।
  • এরপর অ্যাপ প্যানেল থেকে আরো অপশনে ক্লিক করুন

আরও পড়ুনঃ নিজের রবি নাম্বার কিভাবে দেখে? সহজ 2 সমাধান

  • আরো অপশনে ক্লিক করার পরে সেবাসমূহ নামে পেজ ওপেন হবে, এই পেজে পার্টনার ভিত্তিক সেবা সমূহের নিচে থাকা টিকেট অপশনে ক্লিক করুন
  • এরপর টিকেট নামে একটি পেজ ওপেন হবে। এই পেজে আপনি অনেক গুলো অপশন দেখতে পাবেন। যেমন- বিমান, বাস, লঞ্চ, মুভি এবং ট্রেন। যেহেতু আজ আমরা ট্রেনের টিকেট কিনব তাই ট্রেন অপশনে ক্লিক করুন।
  • ট্রেন অপশনে ক্লিক করার পর, পরবর্তী পেজে বাংলাদেশ রেলওয়ে অপশনে ক্লিক করুন।
  • বাংলাদেশ রেলওয়ে তে ক্লিক করার পর, আপনার ফোনের স্ক্রিনের নিচের অংশে আপনাকে নিয়ম এবং শর্তাবলী মেনে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হবে। এখানে আপনি ঠিক আছে লিখার ডান পাশে থাকা Right Arrow তে ক্লিক করুন। বুঝতে অসুবিধা হলে নিচের ছবিতে দেখুন-
  • পরের পেজে আপনাকে E Ticketing Service প্লাটফর্মে নিয়ে যাবে। এখান থেকে আপনি আপনার রুট অর্থাৎ কোথা থেকে যাত্রা শুরু করবেন, আপনার গন্তব্য, ভ্রমনের তারিখ, কোন ধরনের ক্লাসের টিকিট কিনতে চান, কতজন যাত্রী (তাদের মধ্যে কতজন প্রাপ্ত বয়স্ক এবং কতজন বাচ্চা) সেগুলো নির্ধারণ করে টিকিট সার্চ করার জন্য Find বাটনে ক্লিক করুন।
  • আপনার দেওয়া তথ্যানুসারে ট্রেন এবং সিট অ্যাভেইলেবল থাকলে আপনাকে ট্রেনের ভাড়াসহ যাত্রার যাবতীয় তথ্য (ট্রেনের নাম, ভাড়া, ট্রেন ছাড়ার সময়, গন্তব্যে পৌঁছার সময় ইত্যাদি) দেখাবে। এখান থেকে আপনি যে ট্রেনে যাত্রা করতে ইচ্ছুক তার নিচের Details বাটনে ক্লিক করুন।
  • পরের পেজে Availability অপশনে ক্লিক করে Purchase বাটনে ক্লিক করুন
  • পরের পেজে বাংলাদেশ রেলওয়েতরেজিস্টারকৃত ইমেইল অথবা ফোন নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। যদি আপনি নিবন্ধন করে না থাকেন তাহলে এই লিংকে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন।
  • ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পর আপনি আপনার টিকেট এর যাবতীয় তথ্য এবং রুলস এন্ড রেগুলেশন দেখতে পাবেন। সবকিছু চেক করে নিয়ে Buy Ticket বাটনে ক্লিক করুন।

আরও পড়ুনঃ Foodpanda থেকে অনলাইনে খাবার অর্ডার করবেন কিভাবে

  • এরপর Terms & Conditions পেজের নিচের দিকে এসে I agree বাটনে ক্লিক করুন
  • I agree বাটনে ক্লিক করার পরে বিকাশ পেমেন্ট গেটওয়ে পেজ ওপেন হবে। এখানে আপনি Enter Pin লেখা ফাঁকা বক্সে আপনার বিকাশ এর পিন লিখে Confirm বাটনে ক্লিক করুন।
  • Confirm বাটনে ক্লিক করার পর আপনার বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা টিকেটের জন্য নির্ধারিত টাকা কেটে নেবে এবং আপনার টিকিট অ্যাপে জমা হবে।

এরপর অ্যাপ হিস্টোরি থেকে আপনার টিকিট দেখতে এবং সেটিকে প্রিন্ট করতে পারবেন। আপনার ইমেইলেও টিকেট এর একটি কপি পাঠানো হবে। আপনি চাইলে আপনার ইমেইল থেকে আপনার ক্রয় করা টিকেট এর কপি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে পারেন।

নোটঃ টিকেট কেনার পর আপনার কেনা টিকেটের কপি আপনার ইমেইল বা আপনার অ্যাপ হিস্টরি তে জমা হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। যদি এমন হয় তাহলে চিন্তা না করে ১০-১৫ মিনিট পরে আবার চেক করুন।

আরও পড়ুনঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাকে ধাপে ধাপে এবং সহজ ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে কিভাবে বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ট্রেনের টিকেট কিনতে পারবেন। আর্টিকেলটি নিয়ে যে কোন ধরনের প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমাদের কমেন্ট সেকশনে জানান। ধন্যবাদ

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment