Mi অ্যাকাউন্ট কি? কিভাবে Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন?

বর্তমান সময়ে, বাজারে অনেক মোবাইল প্রস্তুতকারক কোম্পানি রয়েছে, যাদের বাজারে অনেক ভালো মানের স্মার্টফোন রয়েছে। আর এই সমস্ত স্মার্টফোনে আমরা গুগল প্লে স্টোর থেকে অনেক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল বা ডাউনলোড করতে পারি। তবে কিছু ফোন আছে যাদের নিজস্ব সফটওয়্যার আছে এবং তাদের নিজস্ব সফটওয়্যার ও অ্যাকাউন্ট দিয়ে আমরা সেই মোবাইলের বিভিন্ন ধরনের পরিষেবা ব্যবহার করতে পারি। এবং তা থেকে আমরা অনেক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করতে পারি। যেমন Apple-এর Apple ID এবং Mi বা Redmi ফোনে Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করা প্রয়োজন। আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে Mi অ্যাকাউন্ট কি? কিভাবে Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন এই বিষয়ে জানানোর চেষ্টা করব।

আপনি আজ পর্যন্ত অনেক ধরণের অ্যাকাউন্টের কথা শুনেছেন, যেমন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, অ্যামাজন অ্যাকাউন্ট ইত্যাদি। এখন নিশ্চয়ই ভাবছেন এই Mi অ্যাকাউন্ট কী? আপনি যদি Xiaomi Redmi ফোন ব্যবহার করছেন বা এই ফোনটি কেনার কথা ভাবছেন তাহলে Mi অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে জানা আপনার জানা প্রয়োজন। সমস্ত Redmi ফোনের জন্য Mi অ্যাকাউন্ট প্রয়োজন।

মি একাউন্ট কি – Mi অ্যাকাউন্ট কি

Mi অ্যাকাউন্ট হল একটি পরিষেবা বা সার্ভিস, যা Xiaomi ফোনের সমস্ত ব্যবহারকারীদের জন্য প্রয়োজন৷ এর মাধ্যমে Xiaomi ফোনের ব্যবহারকারীকে অনেক ধরনের পরিষেবা দেওয়া হয় যেমন ফোন লক, Mi ক্লাউডের সাথে ডেটা সিঙ্ক করা, Mi গেমস, ফোন ফাইন্ডার সার্ভিস, Mi থিমস ইত্যাদি।

এই সব সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য, ব্যবহারকারীকে একটি Mi অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করতে হবে। অর্থাৎ গুগল প্লে স্টোর থেকে কোন কিছু ডাউনলোড করতে হলে যেমন একটি জিমেইল একাউন্ট তৈরি করতে হয়। একইভাবে, Xiaomi-এর সমস্ত পরিষেবা ব্যবহার করার জন্য একটি Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করা প্রয়োজন।

Mi অ্যাকাউন্ট কে অনেকে আই-ফোনের অ্যাপেল আইডির সাথে তুলনা করে থাকে। তবে শাওমি ফোনের ক্ষেত্রে মি একাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক নয়। ব্যবহারকারী চাইলে এটি ব্যবহার করতেও পারে আবার নাও করতে পারে। মি একাউন্ট সাধারনত ডিভাইসের সাথে ডাটা Sync করার একটি মাধ্যম।

Mi ক্লাউড কি

Mi ক্লাউড হল Xiaomi এর ক্লাউড ভিত্তিক স্টোরেজ পরিষেবা । উদাহরণস্বরূপ – Apple-এর iCloud সার্ভিস ৷ Mi ক্লাউডে কাজ করার জন্য, আপনার একটি ভ্যালিড Mi আইডি প্রয়োজন হবে, যা আপনি Mi অ্যাকাউন্টের জন্য সাইন আপ করলে আপনাকে দেওয়া হবে। Mi ক্লাউড আরও অনেক ধরনের বৈশিষ্ট্য প্রদান করে যেমন কন্ট্যাক্ট ব্যাক আপ, মেসেজিং, গ্যালারি, নোট, কল লগ, Wi-Fi সেটিংস এবং আরও অনেক কিছু।

একবার আপনার একটি Mi (মি) ক্লাউড অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করা হয়ে গেলে, আপনি আপনার স্মার্টফোন, ট্যাবলেট বা PC থেকে i.mi.com-এ লগ ইন করে যে কোনো জায়গা থেকে এটি অ্যাক্সেস করতে পারবেন । ব্যবহারকারীদের জন্য ডিফল্টভাবে এতে ফ্রি তে 5GB স্টোরেজ দেওয়া রয়েছে। তবে আপনি চাইলে এক্সট্রা টাকা প্রদান করে স্পেস বাড়াতে পারবেন। অতীতের সিকিউরিটি সংক্রান্ত ইস্যুর কারণে, Xiaomi তাদের সমস্ত Mi ক্লাউড পরিষেবাগুলোকে Amazon Web Services (AWS) এবং Microsoft Azure সার্ভারে স্থানান্তর করেছে।

আরও পড়ুনঃ কিভাবে দ্রুত গুগল অ্যাডসেন্স এপ্রুভ পাবেন?

কেন Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে  

এখন আমরা কথা বলব, এমআই অ্যাকাউন্ট তৈরি করা কেন প্রয়োজন বা মি একাউন্টের প্রয়োজনীয়তা কী? আসুন বিষয়টি উদাহরণের সাহায্যে ব্যাখ্যা করি, ধরুন আমরা যদি কোনো স্কুল বা প্রতিষ্ঠানে থাকি, তখন আমাদের পরিচয় দরকার, যাকে আমরা আইডি বলি। উদাহরণস্বরূপ, গুগলের সমস্ত পরিষেবা ব্যবহার করার জন্য, আমাদের জিমেইল অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হয়। আমরা একে জিমেইল আইডিও বলি। একইভাবে, Mi তে সমস্ত সার্ভিস বা পরিষেবাগুলি ব্যবহার করার জন্য আমাদের একটি পরিচয় বা আইডি তৈরি করতে হবে৷ যদিও কিছু সার্ভিস অ্যাকাউন্ট তৈরি না করেও ব্যবহার করতে পারবেন, তবে সব ফিচার এবং অ্যাপ্লিকেশন মি একাউন্ট ছাড়া ব্যবহার করতে পারবেন না৷

এমআই অ্যাকাউন্টের সুবিধা – মি একাউন্ট এর সুবিধা

মি অ্যাকাউন্ট অন্য যে কোন মোবাইল ফোন বা ওয়েব ব্রাউজার সহ যেকোনো ডিভাইস থেকে অ্যাক্সেস করতে পারবেন। একটি মি অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করার মাধ্যমে, আপনি নিম্নলিখিত সুবিধাগুলো নিতে পারবেন –

আপনি যে ফোনটি বর্তমানে ব্যবহার করছেন তা চেঞ্জ করতে চাইলে, আপনার ফোন বুকের কন্ট্যাক্ট নম্বরগুলো মি একাউন্টের মাধ্যমে সহজেই ক্লাউডে ব্যাকআপ হিসেবে রেখে দিতে পারবেন এবং পরবর্তীতে সেগুলো আপনার নতুন ফোনে ট্রান্সফার করতে পারবেন। Mi ক্লাউডে আপনার কলের হিস্টোরিও সেভ করে রাখতে পারবেন।

অনেক সময় ফোন হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হয়ে গেলে অনেক গুরত্বপূর্ণ মেসেজ হারিয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে মি একাউন্টের মাধ্যমে মেসেজের ব্যাকআপ রেখে দিতে পারেন। এছাড়াও আপনার ফোনের গ্যালারিতে থাকা ছবি ও ভিডিওও মি ক্লাউডে সেভ করে রাখতে পারবেন । ফোন থেকে ডিলিট করে দিলে বা কোন কারণে ডিলিট হয়ে গেলে, মি একাউন্ট থেকে সেই ছবি বা ভিডিও ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

মি একাউন্ট এর  সবচেয়ে কাজের ফিচার হল Find My Device ফিচার। আপনার ফোন যদি হারিয়ে যায়, চুরি হয়ে যায় অথবা খুঁজে না পান, সেক্ষেত্রে অন্য যে কোনো ডিভাইস থেকে আপনার Mi একাউন্টে লগিন করলে, GPS এর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার শাওমি ফোনটি খুঁজে বের করতে পারবেন। এটা অনেকটা Apple ও গুগলের ফাইন্ড মাই ডিভাইস ( Find My Device ) ফিচারের মত কাজ করে।

আপনার শাওমি ফোনে যদি Mi একাউন্ট লগিন করা থাকে, সেক্ষেত্রে প্রত্যেকবার ফোন রিসেট করার পর উক্ত মি একাউন্টে পুনরায় লগইন করতে হবে। এখন কেউ যদি আপনার অনুমতি ব্যতিত আপনার ফোন রিসেট করার চেষ্টা করে কিংবা চুরি করে তা রিসেট করার চেষ্টা করে, তাহলে মি একাউন্ট এটিকে আটকে দেবে।

কিভাবে Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন

Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন –

  • Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য প্রথমে এই লিংকে প্রবেশ করুন।
  • এরপর Create Account অপশনে এ ক্লিক করুন
  • এরপর Country সেকশনের ড্রপ ডাউন মেনু থেকে Bangladesh সিলেক্ট করুন। নিচের eMail এর ঘরে Email Address লিখুন। এরপর I’ve read and agreed to Xiaomi’s User Agreement and Privacy Policy লেখার বাম পাশে থাকা রেডিও বাটনে টিক মার্ক দিয়ে Next বাটনে ক্লিক করুন। (নিচের ছবিতে দেখুন)
  • পরের পেজে আপনার মি একাউন্টের জন্য পাসওয়ার্ড টাইপ করুন এবং পরের ঘরে পুনরায় সেম পাসওয়ার্ড টাইপ করে Next বাটনে ক্লিক করুন।
  • পরবর্তী পেজে আপনাদের আপনার মেইল এড্রেস ভেরিফাই করতে বলা হবে। (নিচের ছবির মত)
  • এরপর আপনার ইমেইলে প্রবেশ করলে শাওমি থেকে একটি মেইল দেখতে পাবেন। এই মেইলে প্রবেশ করে Active Account বাটনে ক্লিক করুন।
  • এরপর আপনারা নিচের ছবির মত Registration Complete লেখা মেসেজ দেখতে পাবেন। সেই সাথে আপনি আপনার মি একাউন্টের আইডিও দেখতে পাবেন। এরপর Complete বাটনে ক্লিক করুন।
  • এরপর আপনার মি একাউন্টের আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে একাউন্টে লগইন করুন। এরপর আপনার সিকিউরিটির জন্য রিকোভারি ফোন নাম্বার এড করে নিন। নিকনেম এবং প্রোফাইল পিকচারও যোগ করুন।

উপরের ধাপ গুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করলে আপনারা খুব সহজেই আপনাদের শাওমি ফোনের জন্য মি একাউন্ট ক্রিয়েট করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ কীভাবে দারাজ অ্যাফিলিয়েট একাউন্ট তৈরি করবেন

মি একাউন্ট কিভাবে ডিলিট করবেন

Mi অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যেমন সহজ, ঠিক তেমনি Mi অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলাও একদম সহজ। মি একাউন্ট ডিলিট করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন –

  • মি একাউন্ট মুছে ফেলার জন্য প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করুন। লিঙ্কটি ওপেন করার পরে ব্যবহারকারীর নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন।
  • লগইন করার সাথে সাথে আপনার সামনে একটি পপ আপ ওপেন হবে। এইখানে আপনি আপনার মি অ্যাকাউন্ট ডিলিট করার অপশন পাবেন। Yes I Want To Permanently Delete My Mi Account অপশনে ক্লিক করুন।
  • ভেরিফিকেশনের জন্য সেন্ড বাটনে ক্লিক করুন
  • এরপর আপনার দেওয়া মোবাইল নম্বরে একটি ভেরিফিকেশন কোড যাবে। সেই ভেরিফিকেশন কোডটি নির্ধারিত বক্সে টাইপ করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।
  • এর পর Delete Account এর অপশনে ক্লিক করুন। এখন আপনার Mi অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে ডিলিট হয়ে যাবে।

কিভাবে মি একাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করবেন

Mi অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করাও খুবই সহজ। Mi একাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন –

  • প্রথমে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন। এরপর Forget Password অপশনে ক্লিক করুন।
  • এখন Enter email or Phone এর নিচের ঘরের ড্রপ ডাউন মেনু তে ক্লিক করে আপনি ইমেইল, ফোন নাম্বার বা মি আইডি (যে মাধ্যমে পাসওয়ার্ড রিকভার করতে চান) সিলেক্ট করুন। আমি এইখানে ইমেইলের মাধ্যমে রিকভার করব তাই ইমেইল সিলেক্ট করে নিচের ঘরে ইমেইল আইডি টাইপ করে নেক্সট বাটনে এ ক্লিক করছি।
  • এরপর E mail Address এর বাম পাশে থাকা রেডিও বাটনে ক্লিক করে Next বাটনে ক্লিক করুন।
  • এরপর সেন্ড বাটনে ক্লিক করুন।
  • এর পরে আপনার ইমেল আইডিতে একটি ওটিপি যাবে, এটি এন্টার কোড লেখা ঘরে বসিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।
  • এখন পরের পেজে আপনার নতুন পাসওয়ার্ড লিখুন এবং এটি আবার নিশ্চিত করুন।
  • এভাবে আপনার পাসওয়ার্ড রিকভার হয়ে যাবে।

শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাদের জানানোর চেষ্টা করেছি মি একাউন্ট কি, কীভাবে মি একাউন্ট ক্রিয়েট করবেন, কীভাবে মি একাউন্ট পারমানেন্টলি ডিলিট করবেন, কীভাবে মি একাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করবেন। আমরা আশা করছি উপরের ধাপ গুলো অনুসরন করে আপনারা এই কাজ গুলো খুব সহজেই করতে পারবেন।

আর্টিকেলটি নিয়ে যে কোন ধরনের প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানান।

ধন্যবাদ ।

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment