ক্যানন 200ডি ডিএসএলআর ক্যামেরা রিভিউ

ক্যানন 200ডি ডিএসএলআর ক্যামেরা (Canon EOS Rebel SL2) হল ক্যাননের মোটামুটি সস্তা এন্ট্রি লেভেল DSLR ক্যামেরা যা বর্তমানে 24.2MP মেগা পিক্সেল রেজুলেশনের সাথে পাওয়া যাচ্ছে। আপনি এটিকে নিকন ডি 3500 এর সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে বিবেচনা করতে পারেন এবং দুজন একে অপরের সাথে সমান ভাবে প্রতিযোগিতা করে। ক্যানন 200 ডি তে 360 ডিগ্রি সুইভেল টাইপ রেয়ার এলসিডি টাচ স্ক্রিন এবং ওয়াই-ফাই রয়েছে যা নাইকন ডি 3500 এর সাথে নেই। ইমেজ কোয়ালিটিতে আপনি উভয়ের মধ্যে কোন ব্যবহারিক পার্থক্য লক্ষ্য করবেন না, কিন্তু D3500 এর লো-লাইট পারফরম্যান্স এবং ইমেজ শার্পনেস 200d এর থেকে কিছুটা ভাল। ক্যানন 200ডি প্রথম রিলিজ হয় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে। বর্তমানে 18-55mm IS STM কিট লেন্স সহ ক্যানন 200ডি ক্যামেরার দাম পরবে প্রায় ৪২ থেকে ৪৫ হাজার টাকার মধ্যে। এই দামে ক্যানন 200ডি তে আমরা কি কি পাচ্ছি সেই সম্পর্কে আমরা আজ বিস্তারিত আলোচনা করব।

ক্যানন 200ডি ডিএসএলআর ক্যামেরা- এর প্রযুক্তিগত বৈশিষ্ট্য

ইমেজ সেন্সরঃ

রেজুলেশন: 24 মেগাপিক্সেল (24 এমপি)

আকার: 14.9 × 22.3 মিমি (APS-C, dx)

ক্যামেরা ডাইমেনশনঃ

আকার: 4.8 x 3.6 x 2.7 ইঞ্চি (122 x 93 x 70 মিমি)

ওজন: 668 গ্রাম (18-55 মিমি কিট লেন্স এবং ব্যাটারি সহ)

ফটো ফরম্যাটঃ

JPEG, RAW (১৪-bit .NEF), RAW+JPEG

ফটো সাইজঃ

6000 x 4000 পিক্সেল (24.0 MP, 3: 2),
3984 x 2656 পিক্সেল (10.6 MP, 3: 2),
2976 x 1984 পিক্সেল (5.9 MP, 3: 2),
2400 x 1600 পিক্সেল (3.8 MP, 3: 2),
6000 x 3368 পিক্সেল (20.2 MP, 16: 9),
3984 x 2240 পিক্সেল (8.9 MP, 16: 9),
2976 x 1680 পিক্সেল (5.0 MP),
2400 x 1344 পিক্সেল (3.2 MP),
5328 x 4000 পিক্সেল (21.3 MP, 4: 3),
3552 x 2664 পিক্সেল (9.5 MP, 4: 3),
2656 x 1992 পিক্সেল (5.3 MP, 4: 3),
2112 x 1600 পিক্সেল (3.4 MP),
4000 x 4000 পিক্সেল (16.0 MP, 1: 1),
2656 x 2656 পিক্সেল (7.1 MP, 1: 1),
1984 x 1984 পিক্সেল (3.9 MP, 1: 1),
1600 x 1600 পিক্সেল (2.6 MP, 1: 1)

ভিডিও সাইজঃ

১৯২০×১০৮০ (৬০p/৫০p/৩০p/২৫p/২৪p)
১২৮০×৭২০ (৬০p/৫০p/৩০p/২৫p)
৬৪০×৪৮০ (৩০p/২৫p)

অটো ফোকাসঃ

মোট ৯ টি অটো ফোকাস পয়েন্ট রয়েছে যার মধ্যে মাত্র ১ টি হচ্ছে ক্রস-টাইপ অটো ফোকাস পয়েন্ট (অটো ফোকাস অ্যাসিস্ট লাইট সহ) ।

ফ্রেম রেট (ছবি/সেকেন্ড)

৫ ফ্রেম প্রতি সেকেন্ড (JPEG এবং RAW উভয়ের জন্য)

কন্টিনিউয়াস মোডে, ক্যামেরা প্রতি সেকেন্ডে পরপর ৫ টি ছবি তুলতে পারে।

ডিসপ্লেঃ

৩ ইঞ্চি আকারের পিছনের ডিসপ্লে স্ক্রিন 1,040,000 ডট বা 345,600 পিক্সেল দিয়ে সজ্জিত।

ভিউ ফাইন্ডারঃ

৯৫% কভারেজ, 0.87x ম্যাগনিফিকেশন

এক্সপোজারঃ

শাটারস্পিড: 1/4000 – 30 সেকেন্ড

ISO রেঞ্জ: 100 – 25600

হোয়াইট ব্যালেন্সঃ

অটো, দিবালোক, ছায়া, মেঘলা, টংস্টেন, হোয়াইট ফ্লুরোসেন্ট, ফ্ল্যাশ, কাস্টম।

ক্রিয়েটিভ মোডঃ

ইনটেলিজেন্ট অটো, ফ্ল্যাশ অফ, ক্রিয়েটিভ অটো, বিশেষ দৃশ্য (প্রতিকৃতি, গ্রুপ ফটো, ল্যান্ডস্কেপ, খেলাধুলা, বাচ্চা, ক্লোজ-আপ, খাবার, ক্যান্ডেললাইট, নাইট পোর্ট্রেট, হ্যান্ডহেল্ড নাইট সিন, এইচডিআর ব্যাকলাইট কন্ট্রোল), ক্রিয়েটিভ ফিল্টার (গ্রেনি বি/ ডব্লিউ, সফট ফোকাস, ফিশ-আই, ওয়াটার পেইন্টিং, টয় ক্যামেরা, মিনিয়েচার, এইচডিআর আর্ট (স্ট্যান্ডার্ড/ ভিভিড/ বোল্ড/ এমবসড)

সেলফ টাইমারঃ

10 সেকেন্ড পরে 10s, 2s, 2-10 শট

বিল্ট ইন ফ্ল্যাশঃ

ক্যামেরাটি তার বিল্ট ইন ফ্ল্যাশের মাধ্যমে প্রায় 10 মিটার পর্যন্ত দুরের বস্তুকে ভালভাবে আলোকিত করতে পারে।

সর্বোচ্চ ফ্ল্যাশ সিঙ্ক:: 1/200 [অর্থাৎ, ফ্ল্যাশ দিয়ে ছবি তোলার জন্য সর্বোচ্চ 1/200sec এর সর্বোচ্চ শাটার স্পিড রাখতে পারবেন]

ব্যাটারি লাইফঃ

ব্যাটারি হিসেবে এতে দেয়া হয়েছে LP-E17 মডেলের ব্যাটারি। প্রতিবার ফুল চার্জে প্রায় ৬০০-৭০০ ছবি তোলা যায়।

ক্যানন ২০০ডি ক্যামেরার দামঃ

বর্তমানে 18-55mm IS STM কিট লেন্স সহ ক্যানন 200ডি ক্যামেরার দাম পরবে প্রায় ৪২ থেকে ৪৫ হাজার টাকার মধ্যে।

স্টারটেক লিমিটেডে ক্যানন ২০০ ডি ক্যামেরার দাম

বিডি স্টলে ক্যানন ২০০ ডি ক্যামেরার দাম

বিস্তারিত আলোচনা

আপনি যদি প্রথমবারের মতো একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনতে চাচ্ছেন এবং আপনি ক্যানন ব্র্যান্ডের ডিএসএলআর কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তবে এই ক্যামেরাটি আপনার জন্য সেরা পছন্দ হবে। এই কামেরাটিতে যে ইমেজ সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে তা ক্যাননের অনেক প্রফেশনাল বডি তেও ব্যবহার করা হয়েছে। যার ফলে আপনি এই ক্যামেরা থেকে অনেক ভালো মানের ছবি পাবেন। ক্যানন ২০০ ডি ক্যামেরার বডি বিল্ড কোয়ালিটি এক কোথায় অসাধারণ।

আপনি 200 ডি তে ছবি তোলার সময় ৯ টি অটো ফোকাস পয়েন্ট ব্যবহার করতে পারবেন। এই ৯ টি অটোফোকাস পয়েন্ট সিস্টেম খুব দ্রুত কাজ করে এবং সম্পূর্ণ নির্ভরযোগ্য। এই ৯ টি ফোকাস সেন্সরের মধ্যে ১ টি হল ক্রস টাইপ (মাঝখানে)। কিন্তু যখন আপনি ভিউফাইন্ডার দিয়ে অটোফোকাস করবেন তখন পারফর্মেন্স তেমন একটা ভাল পাবেন না ।

ক্যানন ২০০ ডি ক্যামেরা, ক্যাননের ফুল ফ্রেম EF মাউন্ট ও ক্রপ সেন্সর EF-S মাউন্ট দুই টাইপের লেন্সই সাপোর্ট করে। এছাড়াও থার্ড পার্টির (ট্যামরোন, সিগমা) ক্যানন কম্প্যাটিবল যে কোন লেন্সও ব্যবহার করতে পারবেন। ক্যামেরাটি সর্বাধিক ৫ ফটো/সেকেন্ডের ফ্রেম রেটে ছবি তুলতে পারে।

ডিসপ্লে হিসেবে ক্যামেরাটি তে রয়েছে ৩ ইঞ্চি সাইজের ভ্যারি এঙ্গেল ১.০৪ মিলিওন sRGB ডটের ক্লিয়ার ভিউ TFT Display। সহজ ভাবে বলতে গেলে ক্যামেরাটিতে রয়েছে সাইডে ফ্লিপ করা যায় এমন একটি টাচ Screen ডিসপ্লে।

ক্যামেরাটি তে ব্লুটুথের পাশাপাশি ওয়াই-ফাই রয়েছে। ব্লুটুথের সাহায্যে আপনি ক্যামেরা থেকে আপনার ফোনে ছবি স্থানান্তর করতে পারবেন। আবার ওয়াই-ফাইয়ের সাহায্যে, আপনি একটি ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ক্যামেরাকে ফোনের সাথে সংযুক্ত করতে পারবেন।

ইমেজ সেন্সর হিসেবে ২০০ ডি তে রয়েছে 24.2 মেগাপিক্সেলের APSC CMOS সেন্সর। ক্যামেরাটিতে ইমেজ প্রসেসর হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ক্যাননের Digic 7 প্রসেসর । ক্যামেরাটিতে ১০০ থেকে ৫১২০০ পর্যন্ত আইএসও ক্যাপাবিলিটি রয়েছে ।

ফটোগ্রাফির দিক বিবেচনায় কিছুটা দুর্বল হলেও ভিডিও কোয়ালিটির থেকে যথেষ্ট এগিয়ে রয়েছে এই ক্যামেরা। এটির সেন্সর আর ইমেজ প্রসেসর আপার লেভেলের মডেলের হওয়ায় আপনি এঁর মাধ্যমে খুব ভালো মানের ভিডিও রেকর্ডিং করতে পারবেন। এই ২০০ডি Camera দিয়ে ফুল এইচডি 1080পি রেজোল্যুশনে ৬০, ৫০, ৩০, ২৫ ও ২৪ FPS ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। এছাড়াও শুধু এইচডি 720পি রেজোল্যুশনেও ৬০, ৫০, ৩০ ও ২৫ FPS Video রেকর্ড করতে পারবেন।

শেষ কথা

ক্যানন 200D মুলত রিলিজ করা হয়েছে সম্পূর্ণ বিগিনার লেভেলের ভিডিওগ্রাফারদের জন্য। ক্যামেরার হালকা ওজন, হাই রেজোল্যুশন আর এফপিএসের ভিডিও করার ক্ষমতা এবং বিখ্যাত ডুয়েল পিক্সেল অটোফোকাস সিস্টেম ক্যামেরাটিকে সম্পূর্ণ রূপে একটি ভিডিও অরিয়েন্টেড স্পেশালি ব্লগিং ডিএসএলআর হিসেবে পরিণত করেছে। তাই যারা নতুন ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন অথবা ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও পাবলিশ করার কথা ভাবছেন তাদের জন্য এটি একটি আদর্শ ক্যামেরা।

বিডিটেকটিউনার

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment