চুরি বা হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোন থেকে সব তথ্য ও ছবি ডিলিট করুন

চুরি বা হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোন থেকে সব তথ্য ও ছবি ডিলিট করুন

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে স্মার্টফোন একটি অপরিহার্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে । বেশিরভাগ সময় তাই এই স্মার্টফোনে আমরা আমাদের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিগত তথ্য এবং ছবি সংরক্ষন করে রাখি । আর বর্তমানে স্মার্টফোন চুরি বা হারিয়ে যাওয়া খুবই সাধারন বিষয় । যার ফলে যদি আমাদের স্মার্টফোন টি কোন কারনে চুরি হয়ে যায় অথবা হারিয়ে যায় তাহলে আমাদের ব্যাক্তিগত তথ্য বা ছবি অসাধু ব্যাক্তির হাতে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই তথ্য বা ছবি এর দ্বারা আমাদের অনেক ধরনের ক্ষতি করা সম্ভব। তাই এই আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব, চুরি বা হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোন থেকে কিভাবে সব তথ্য ও ছবি ডিলিট করবেন ।

ধরুন, আপনার স্মার্টফোনটি হারিয়ে গিয়েছে অথবা চুরি হয়েছে। তাতে থাকতে পারে অনেক ধরনের প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, যেমন- আপ্নার ব্যক্তিগত ছবি থাকতে পারে, থাকতে পারে আপনার অফিসের কোন গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট, এছাড়াও পরিবার পরিজনের মোবাইল নম্বরসহ দীর্ঘদিন ব্যবহার করার কারনে অনেক কিছু জমা হয়ে যায় স্মার্টফোনে। স্বাভাবিকভাবেই আপনি কখনই চাইবেন না যে সেই তথ্য গুল অন্য কারও হাতে চলে যাক। আবার স্মার্টফোনটিও আপনার হাতছাড়া হয়ে গিয়েছে।

তবে বর্তমানে আপনার হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোনের সব তথ্য মুছে ফেলার ব্যবস্থা রয়েছে। ‘রিমোট ওয়াইপ’ নামে একটি এপ্লিকেশন এই সুবিধা টি প্রদান করে থাকে। অ্যান্ড্রয়েড ও আইফোন উভয় প্লাটফর্মেই এই এপস কাজ করবে । কিছু কিছু ল্যাপটপেও এই সুবিধা টি পাওয়া যাবে।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে যেভাবে কাজটি করবেন

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে সুবিধাটি পেতে হলে আপনাকে যেতে হবে ‘ফাইন্ড মাই ডিভাইস’ অপশনে। তবে এই সুবিধাটি ব্যবহারের সময় আপনার স্মার্টফোনটি অবশ্যই চালু থাকতে হবে, আপনার স্মার্টফোনটিতে ইন্টারনেট সংযোগ চালু থাকতে হবে, গুগল অ্যাকাউন্টে লগইন করা অবস্থায় থাকতে হবে এবং ফাইন্ড মাই ডিভাইস অপশন চালু থাকতে হবে। ফাইন্ড মাই ডিভাইস অপশন আগে থেকে চালু করা না থাকলে সেটিংস থেকে গুগল মেনুতে দেখে নিতে পারেন। আবার এইখান থেকে অ্যাপটি নামিয়ে ইনস্টল করেও নিতে পারেন।

ছবি ও তথ্য মুছবেন যেভাবে

প্রথমেই আপনি android.com/find এই ঠিকানার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আপনার গুগল অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করুন। আপনার হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোনেও কিন্তু একই গুগল অ্যাকাউন্ট যুক্ত করা থাকতে হবে। লগইন করার পর ওপরের বাম পাশে আপনার স্মার্টফোনটি দেখতে পাবেন। একাধিক স্মার্টফোন থাকলে যেটি চুরি হয়েছে, সেটি সিলেক্ট করুন। ব্যাটারিতে কত পারসেন্ট চার্জ রয়েছে, অনলাইনে যুক্ত রয়েছে কি না বা শেষ কখন অনলাইনে ছিল—এমন কিছু তথ্য স্ক্রিনে দেখতে পাবেন। পাশের মানচিত্রে স্মার্টফোনটির সম্ভাব্য অবস্থান প্রদর্শন করবে গুগল (তবে এই সুবিধাটি পাওয়ার জন্য আপনার হারিয়ে যাওয়া ডিভাইসের লোকেশন অপশন চালু করা থাকতে হবে)।

android.com/find

স্ক্রিনের বাম পাশে তিনটি অপশন পাবেন দেখতে পাবেন

১. প্লে সাউন্ড

স্ক্রিনের মানচিত্রে প্রদর্শিত স্মার্টফোনের বর্তমান অবস্থান যদি আপনার কাছাকাছি অথবা চেনাজানা কোথাও হয় তাহলে আপনি সেই জায়গায় গিয়ে ‘প্লে সাউন্ড’ অপশনটি সিলেক্ট করতে পারেন। যদি ফোনটি সাইলেন্ট মোডেও থাকে তারপরেও স্মার্টফোনটির রিংটোন বেজে উঠবে। তবে জায়গা অপরিচিত হলে আপনার পরিচিত কিছু বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে যাবেন । অন্যথায় একা গিয়ে বিপদে পরে যেতে পারেন।

প্লে সাউন্ড

২. সিকিউর ডিভাইস

স্ক্রিনে ২য় অপশন হিসেবে সিকিউর ডিভাইস অপশন টি দেখতে পাবেন। ‘সিকিউর ডিভাইস অপশন’ নির্বাচন করার মাধ্যমে আপনি আপনার হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোনটি লক করে দিতে পারবেন। চাইলে ফোনের স্ক্রিনে কোনো বার্তা দেখাতে পারবেন, আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য আপনার ফোন নম্বরটি বার্তা হিসেবে দিয়ে দিতে পারবেন।

সিকিউর ডিভাইস

৩. ইরেজ ডিভাইস

সবার শেষে রয়েছে ‘ইরেজ ডিভাইস’ অপশনটি। এই অপশনটির মাধ্যমেই আপনি আপনার ফোনের সব তথ্য মুছে ফেলতে পারবেন। তাই আপনি যদি আপনার চুরি বা হারিয়ে যাওয়া স্মার্টফোন থেকে সব তথ্য ও ছবি ডিলিট করতে চান তাহলে ইরেজ ডিভাইস’ অপশনটি নির্বাচন করুন । ইরেজ ডিভাইস’ অপশনটি সিলেক্ট করার সাথে সাথে আপনার ডিভাসের সব তথ্য মুছে যাবে । আর তথ্য মুছে যাওয়ার পর ‘ফাইন্ড মাই ডিভাইস’ অপশনটি কাজ করা বন্ধ করে দেবে। স্মার্টফোনটি যদি অফলাইনে দেখায় তাহলে যখন সেটি অনলাইনে আসবে, তখন তথ্য মুছে ফেলার প্রক্রিয়াটি শুরু হবে এবং সব তথ্য মুছে ফেলবে।

ইরেজ ডিভাইস

আইফোনে যেভাবে রিমোট ওয়াইপ ব্যবহার করবেন

আইফোনে ‘ফাইন্ড মাই আইফোন’ নামে সুবিধাটি পেয়ে যাবেন । সুবিধাটি ব্যবহার করতে হলে অ্যান্ড্রয়েডের মতোই আগে থেকে চালু করে নিতে হয়। কাজটি করার জন্য প্রথমেই আপনাকে আইফোনের সেটিংস অ্যাপ থেকে আপনার অ্যাপল আইডি অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করতে হবে। তারপর ‘ফাইন্ড মাই’ থেকে ‘ফাইন্ড মাই আইফোন’ সিলেক্ট করে অপশন টি চালু করতে হবে।

যখন আপনি প্রায় নিশ্চিত হয়ে যাবেন যে, হারানো বা চুরি যাওয়া আইফোনটি আর কোন ভাবেই ফেরত পাওয়া সম্ভব না, তখন রিমোট ওয়াইপ নির্বাচন করতে পারেন।

সে জন্য অন্য আরেকটি আইফোন বা আইপ্যাড থেকে ‘ফাইন্ড আইফোন’ অ্যাপটি ওপেন করুন। অবশ্য কম্পিউটারের ওয়েব ব্রাউজার থেকেও আপনি কাজটি করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আইক্লাউড ডটকম ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার আইক্লাউড অ্যাকাউন্ট দিয়ে সাইনইন করতে হবে।

এরপর স্ক্রিনের ওপরের দিকে ‘অল ডিভাইসেস’ অপশন থেকে যে ডিভাইসের তথ্য ডিলিট করতে চান, সেটি সিলেক্ট করুন। অ্যান্ড্রয়েড ফোনের মতো আইফোনেও রয়েছে হারানো ফোন খুঁজে পাওয়ার কিছু অপশন। তবে আমরা ফোন খোঁজার বিষয়টি বাদ দিয়ে এখানে শুধুমাত্র তথ্য ডিলিট করার সিস্টেমটি দেখব। আর সেটি করার জন্য স্ক্রিনের ওপরের ডান দিকে ‘ইরেজ আইফোন’ অপশন টি নির্বাচন করতে হবে। ইরেজ আইফোন অপশন টি নির্বাচন করার সাথে আপনার হারিয়ে যাওয়া ডিভাইসের তথ্য ডিলিট করার প্রক্রিয়াটি শুরু হবে।

আবার আইফোনের ক্ষেত্রে দশ বারের বেশি ভুল পাসকোড চাপলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সব তথ্য মুছে ফেলার অপশনটি চালু করা যায়। অপশনটি চালু করার জন্য প্রথমে সেটিংস অ্যাপ থেকে ‘টাচ আইডি অ্যান্ড পাসকোড’ অপশন সিলেক্ট করুন। আইফোনে যদি ফেস আইডি থাকে তাহলে অপশনটি ‘ফেস আইডি অ্যান্ড পাসকোড’ নামে দেখাবে । পাসকোড চাইলে তা বসিয়ে দিন। আর পাসকোড যদি সেট করা না থাকে তাহলে ‘টার্ন পাসকোড অন’ অপশন নির্বাচন করে সেটি চালু করতে হবে। এবার স্ক্রিনের নিচের দিকে থাকা ‘ইরেজ ডেটা’ টগল অপশনটি সচল করে দিন।

এরপর থেকে যদি কেউ পরপর ১০ বার ভুল পাসকোড চাপে, তাহলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আইফোনের সব তথ্য মুছে যাবে।

লেখাটি ভালো লাগলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন। কোনো জিজ্ঞাসা অথবা পরামর্শ থাকলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

বিডিটেকটিউনার

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment