দড়ি লাফানোর উপকারিতা এবং অসুবিধা

বর্তমানে অনেক মানুষ ফিট থাকার জন্য ব্যায়াম করার চিন্তা করেন, কিন্তু কাজের ব্যস্ততার কারণে জিমে যেতে পারেন না । এমন অবস্থায়, আমরা যদি আপনাদের বলি, ফিট থাকার জন্য জিমে যাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই । ঘরে থেকেই স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া সম্ভব, তাহলে আপনাদের মধ্যে অনেকেই আমাদের কথা বিশ্বাস করবেন না, তবে এটি সত্যিই সম্ভব । ঘরে থেকেই, প্রতিদিন অল্প কিছু সময় বের করে ব্যায়াম করলেই শরীর ফিট রাখা সম্ভব । আর এটি করার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হলো দড়ি লাফানো । এর মাধ্যমে পুরো শরীরকে ফিট রাখা যায় । তবে দড়ি লাফানোর পাশাপাশি পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার দিকেও খেয়াল রাখতে হবে । এর মাধ্যমে অনেক ধরনের শারীরিক ও মানসিক সমস্যাকে দূরে রাখা যায় । আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের সাথে দড়ি লাফানোর পদ্ধতি, দড়ি লাফানোর উপকারিতা এবং অসুবিধা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব ।

দড়ি লাফানোর উপকারিতা – দড়ি লাফানোর সুবিধা

সঠিক সময় এবং সঠিক নিয়ম মেনে দড়ি লাফানো, আমাদের সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী হতে পারে । নিচে দড়ি লাফানোর উপকারিতা দেওয়া হল –

হার্ট ভাল রাখতে – প্রতিদিন দড়ি লাফানোর মাধ্যমে হার্টকে সুস্থ্য রাখা যায় । মূলত, দড়ি লাফানোর মাধ্যমে হার্টের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায় । রোপ জাম্পিং বা দড়ি লাফ, কার্ডিও সঞ্চালন ডেভেলপ করে, যা রক্ত ​​পাম্প করার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় । হার্ট অ্যাটাক এবং হার্ট-সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরণের ঝুঁকি কমিয়ে এটি হার্টকে সুস্থ্য রাখতে সহায়তা করে ( তথ্যসূত্র )। এই কারণেই কার্ডিও ব্যায়ামের তালিকায় দড়ি লাফানোকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে ।

ক্যালোরি বার্ন করতে সহায়ক – কেউ যদি স্থূলতা বা মেদ ভুড়ি কমাতে চায়, তাহলে দড়ি লাফানো তাদের জন্য উপকারী ভুমিকা পালন করতে পারে । রোপ জাম্পিং বা দড়ি লাফ, শরীরে উপস্থিত অতিরিক্ত ক্যালোরি বার্ন করতে সাহায্য করে । অতএব, এটা বলা যেতে পারে যে, দড়ি লাফানোর ফলে আমাদের শরীরের অতিরিক্ত ক্যালোরি বার্ন হওয়ার কারণে, আমাদের মেদ ভুঁড়ি ধীরে ধীরে কমতে থাকে ।

স্ট্যামিনা বাড়াতে – পেশীর কার্যকারিতা এবং শরীরের স্ট্যামিনা বৃদ্ধি করতে দড়ি লাফ কার্যকরী ভুমিকা পালন করে । নিয়মিত দড়ি লাফানোর ফলে পেশী শক্তিশালী হয় । এটি আমাদের শরীরের ভারসাম্য বজায় রাখতেও সাহায্য করে । এটি শিশুদের ক্ষেত্রেও সমান উপকারী বলে মনে করা হয় । সেই সাথে নিয়মিত রোপ জাম্পিং এর কারণে শরীরের স্ট্যামিনাও বৃদ্ধি পায় ।

ফুসফুসের উন্নতি – খারাপ খাদ্যাভ্যাস এবং অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রার কারণে অনেক ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে । এর ফলে ফুসফুসের সমস্যা দেখা দিতে পারে, এমনকি শ্বাসযন্ত্রের সিস্টেমের উপরেও খারাপ প্রভাব পড়তে পারে । এমন পরিস্থিতিতে পালমোনারি ধমনীকে সুস্থ রাখা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়ে । এগুলোকে সুস্থ্য রাখতে এবং এগুলোর কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে দড়ি লাফানো কার্যকরী ভুমিকা পালন করে । মূলত, দড়ি লাফানোর ফলে শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়, যা ফুসফুসের কার্যকারিতা উন্নত করতে সহায়ক ভুমিকা পালন করে ।

হাড়ের মজবুত করতে – বর্তমানে অনেক মানুষ, অস্টিওপরোসিস এবং এর সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সাথে লড়াই করছেন । এই অবস্থায় হাড় এতটাই দুর্বল হয়ে যায় যে, সামান্য আঘাতেও হাড় ভেঙ্গে যেতে পারে । NCBI, হাড় মজবুত করার উপর একটি গবেষণা পত্র প্রকাশ করেছে । এই গবেষণার আওতায় মেয়েদের ২ দল গঠন করা হয়েছিল । এদের মধ্যে একটি টিম নিয়মিত দড়ি লাফানোর অনুশীলন করত । ফলস্বরূপ, নন-জাম্পিং গ্রুপের তুলনায়, নিয়মিত রোপ জাম্পিং করা গ্রুপের মেয়েদের হাড়ের ঘনত্বের উন্নতি হয়েছিল । এর ভিত্তিতে বলা যেতে পারে যে, অস্টিওপোরোসিসের মতো সমস্যাগুলি থেকে দূরে থাকতে, আপনার দৈনন্দিন রুটিনে দড়ি লাফানোকে অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন ।

মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য – শারীরিক বিভিন্ন কার্যকলাপ, আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে । NCBI দ্বারা প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা খুব বেশি শারীরিক পরিশ্রম বা কার্যকলাপ করেন না, তাদের মধ্যে বিষণ্নতার লক্ষণ বেশী দেখা যায় । একই সাথে, যারা নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করেন বা দড়ি লাফের মতো কঠোর ব্যায়াম করেন, তাদের মধ্যে বিষণ্নতার লক্ষণ কম দেখা গেছে । এর ভিত্তিতে, এটা বলা যেতে পারে যে, দড়ি লাফানোর মত শারীরিক কার্যকলাপ আপনার মানসিক সাস্থ্য ভাল রাখতে সহায়তা করতে পারে ।

শরীরের জয়েন্টের উন্নতির জন্য – নিয়মিত রোপ জাম্পিং এর কারণে আমাদের শরীরের বিভিন্ন জয়েন্ট অনেক বেশী শক্তিশালী হয়ে ওঠে । নিয়মিত দড়ি লাফানোর ফলে গোড়ালি, নিতম্ব, হাঁটু এবং কাঁধের জয়েন্টের নড়াচড়া বৃদ্ধি পায় । এর ইতিবাচক প্রভাব জয়েন্টগুলির উপর দেখা যায় এবং এর ফলে আমাদের শরীরের বিভিন্ন অংশের অনেক বেশী মজবুত হয় ।

ত্বক ভাল রাখতে – মসৃণ, উজ্জ্বল, সজীব এবং সুন্দর ত্বকের জন্য নিয়মিত দড়ি লাফ অনুশীলন করতে পারেন । দড়ি লাফের সময় আপনার ক্যালোরি বার্ন হয় এবং অল্প সময়ে অনেক বেশী পরিশ্রম হয় । শরীর থেকে ঘামের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের বিষাক্ত উপাদান বের হয়ে যায় । এর ফলে ত্বকের মসৃণতা, সজীবতা এবং উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় ।

রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে –যে কোন ধরনের ব্যায়ামের মতো দড়ি লাফ, আমাদের শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে । নিয়মিত দড়ি লাফ অনুশীলন করলে, শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে মন হয়ে ওঠে ফুরফুরে, চাঙ্গা এবং প্রাণবন্ত ।

আরও পড়ুনঃ ডিম খাওয়ার উপকারিতা, ব্যবহার এবং অসুবিধা

দড়ি লাফানোর নিয়ম

দড়ি লাফানোর অনেক ধরনের উপায় আছে, কিন্তু এগুলোর মধ্যে কয়েকটি অনেক কঠিন । এগুলো করার জন্য নিয়মিত অনুশীলনের প্রয়োজন । নিচে আমরা, দড়ি লাফানোর সহজ থেকে কঠিন পদ্ধতি সম্পর্কে বলছি ।

  • দুই পায়ে দড়ি লাফ – দুই পা একসাথে, অর্থাৎ উভয় পায়ে একসাথে দড়ি দিয়ে লাফ দেওয়া হল, রোপ জাম্পিং এর সবচেয়ে সহজ এবং সাধারণ নিয়ম । যারা প্রথমবার দড়ি লাফানোর কথা চিন্তা করছেন তারা এই পদ্ধতি দিয়ে শুরু করতে পারেন ।
  • সিঙ্গেল-লেগ জাম্প – এই পদ্ধতিটি কয়েকদিন অনুশীলন করার পরেই ট্রাই করা উচিত । এটি মূলত একটি পা দিয়ে লাফানো হয়, যার জন্য পুরো শরীরের ভারসাম্য একটি পায়ের উপরে পরে । কেউ যদি নতুন দড়ি লাফানো শুরু করেন, তাহলে এটি করা থেকে বিরত থাকুন ।
  • ক্রস হ্যান্ড জাম্প – এই ধরনের রোপ জাম্পিং এর ক্ষেত্রে, জাম্পার তার হাত সামনের দিকে অতিক্রম করে । অনেক সময় এই পদ্ধতিতে জাম্প করতে গিয়ে পায়ে দড়ি বেধে পড়ে যাওয়ার ভয় থাকে । অতএব, শুধুমাত্র অভিজ্ঞ ব্যক্তিরাই এই পদ্ধতিতে রোপ জাম্পিং করতে পারেন ।

নোট: আপনি যদি প্রথমবার দড়ি লাফানো শুরু করতে চান, তবে শুরুতে কম গতিতে উভয় পা দিয়ে শুরু করুন ।

দড়ি লাফানোর সঠিক সময়

ব্যায়াম করার যেমন একটা নির্দিষ্ট সময় রয়েছে, ঠিক তেমনি দড়ি লাফানোর সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হল সকাল । এটি সারা শরীরে ব্লাড সারকুলেশন উন্নত করতে সহায়তা করে । এছাড়াও, আপনি সন্ধ্যার সময় দড়ি লাফ দিতে পারেন । এই দুই সময়ই দড়ি লাফানোর জন্য সমচেয়ে ভালো এবং উপযুক্ত সময় ।

আরও পড়ুনঃ বদহজমের কারণ, লক্ষণ এবং ঘরোয়া প্রতিকার

কাদের দড়ি লাফ দেওয়া উচিত নয় ?

দড়ি লাফানোর কারণে কিছু কিছু রোগের সমস্যা বাড়তে পারে । এমন অবস্থায় ওই সেই সমস্ত রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের দড়ি লাফানো থেকে বিরত থাকা উচিত । 

  • যারা হৃদরোগের সমস্যায় ভুগছেন, তাদের দড়িতে লাফ দেওয়া উচিত নয় ।
  • যদি কোন ব্যক্তির রিসেন্ট অস্ত্রোপচার করা হয়, তাহলে সেই ব্যক্তির রোপ জাম্পিং করা উচিত নয় । এমনকি পুরোপুরি সুস্থ্য হয়ে যাওয়ার পরেও, দড়ি লাফ দেওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত ।
  • উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের দড়িতে লাফ দেওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত । এরপরও যদি কেউ এটি করতে চান, তাহলে প্রথমে একবার চিকিৎসকের পরামর্শ নিন ।
  • যাদের হাড় সংক্রান্ত কোনো ধরনের সমস্যা আছে, তাদের দড়িতে লাফ দেওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত ।
  • হাঁপানিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের দড়িতে লাফ দেওয়া উচিত নয়, কারণ এর ফলে শ্বাসকষ্টের সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পারে ।

দড়ি লাফানোর অসুবিধা

দড়িতে লাফ দিলে যেমন অনেক ধরনের উপকার পাওয়া যায়, তেমনি এর কিছু অসুবিধাও রয়েছে । দড়ি লাফানোর কিছু অসুবিধা নিচে দেওয়া হল –

  • দড়ি লাফানোর সময় দড়ি পায়ে বেধে অনেক সময় আঘাত লাগতে পারে ।
  • অনেক সময় পা মচকেও যেতে পারে ।
  • এটি করার সময়, পেশী স্ট্রেন উঠতে পারে ।

শেষ কথা

আজকের আর্টিকেলটি পড়ার পরে, আপনিও দড়ি লাফানোর কথা ভাবতে পারেন । দড়ি লাফানো একদিকে যেমন সহজ এবং সেই সাথে এটি আমাদের সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী । আবার এই খেলায় খুব বেশি সময়েরও প্রয়োজন হয়না । তাই স্কিপিং বা দড়ি লাফ অন্য যে কোন ব্যায়ামের তুলনায় একটি সহজ অপশন হতে পারে । আর এটি সহজ হওয়ার কারণে যে কেউ এটি করতে পারে । কখন এটি করা ভাল হবে সে সম্পর্কে আমরা আর্টিকেলের উপরের অংশে তথ্য দিয়েছি । এছাড়াও, কোন পরিস্থিতিতে এটি করা উচিত নয়, সেটি সম্পর্কেও উপরে তথ্য দেওয়া হয়েছে । আর্টিকেলটি নিয়ে যে কোন ধরনের প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানান ।

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment