শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করার পদ্ধতি

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করার পদ্ধতি

পাসওয়ার্ড শব্দটির সাথে আমরা সবাই পরিচিত । অনলাইন নির্ভর এই বিশ্বে পাসওয়ার্ড শব্দটি কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আমরা সবাই জানি । তাই একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে আপনার আমার অনলাইন অ্যাকাউন্ট (ফেসবুক, টুইটার, গুগল, ইয়াহু ইত্যাদি) অসাধু ব্যক্তিদের (হ্যা-কার) থেকে রক্ষা করা সম্ভব। একটি দূর্বল পাসওয়ার্ডের কারনে, অনলাইন বা অফলাইন যেকোন জায়গাতেই আমাদের ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে । তাই সবসময় পাসওয়ার্ড নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমাদের সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। তাই এই আর্টিকেলে আমরা জানব, শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করার পদ্ধতি এবং সেই সাথে পাসওয়ার্ড নিবার্চনের ক্ষেত্রে কি কি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় লক্ষ্য রাখা উচিত।

পাসওয়ার্ড কি?

পাসওয়ার্ড মুলত বিভিন্ন শব্দ, অক্ষর, সংখ্যা এবং চিহ্নের সমষ্টি, যা ব্যবহার হয়ে থাকে সঠিক ব্যবহারকারী চিহ্নিত করার জন্য এবং যাচাই শেষে ব্যবহারকারীকে নির্দিষ্ট একাউন্টে প্রবেশের অনুমোদন দিতে। পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে যেহেতু একটি নির্দিষ্ট একাউন্টে নির্দিষ্ট ব্যক্তির অনুমোদন যাচাই এবং নিশ্চিত করা হয়ে থাকে, সেই জন্য এটি গোপনীয় রাখা অত্যন্ত জরুরী। উপরের আলোচনার উপর ভিত্তি করে আমরা বলতে পারি পাসওয়ার্ড হলো কিছু গোপন শব্দ, অক্ষর, সংখ্যা বা চিহ্নের সমষ্টি, যা সঠিক ব্যাবহারকারিকে প্রবেশ অনুমতি দিতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এই জন্য একটি বিষয় খেয়াল করে দেখবেন যে, যখন আমরা কোথাও পাসওয়ার্ড লিখি সেই জায়গা টি Password লিখলে ******* এই রকম স্টার বা ডট হয়ে যায়, যাতে অন্য কেউ দেখতে বা বুঝতে না পারে পাসওয়ার্ড বক্সে কি লেখা হয়েছে।

পাসওয়ার্ড কেন এত গুরুত্বপূর্ণ ?

আমাদের সবার কাছে পাসওয়ার্ড বিষয়টি কেন গুরুত্বপূর্ণ সেটি আমরা সবাই জানি, কিন্তু তারপরেও আপনাদের কে মনে করিয়ে দিতে চাই। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের পাসওয়ার্ড নির্বাচনের ক্ষেত্রে যতটা গুরুত্ব দেওয়া উচিত ততোটা গুরুত্ব বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেওয়া হয় না। যার ফলে এই পাসওয়ার্ড নির্বাচনে ভুল করার কারণে আপনার অনলাইন অ্যাকাউন্টের ক্ষতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনার বিভিন্ন বাক্তিগত তথ্য অন্যের হাতে চলে যাবে । আর তা আপনি কল্পনা করতে পারবেন নাহ। আপনার ব্যাবহৃত ফেসবুক একাউন্টের পাসওয়ার্ড টি যদি অন্য কেউ পেয়ে যায় তাহলে কি কি হতে পারে আপনি নিশ্চই কল্পনা করতে পারছেন। নিজের ফেসবুক আইডি কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যক্তিগত জিনিস সেটা আপনি খুব ভালো করেই জানেন । শুধুমাত্র ফেসবুক আইডি নয়, অন্য যে কোন অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে পাসওয়ার্ড এর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

পাসওয়ার্ড নির্বাচনে সতর্কতা

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড নির্বাচনের পূর্বে আমাদের জানতে হবে কোন ধরনের পাসওয়ার্ড গুলো আসলে দুর্বল, কোন বিষয় বা জিনিস গুলো পাসওয়ার্ড হিসাবে কখনই ব্যবহার করা যাবে না, তাহলে শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করতে আমাদের জন্য অনেক সুবিধা হবে। নিজের কোন তথ্য (নিজের নাম, মোবাইল নাম্বার, জন্ম তারিখ ইত্যাদি) পাসওয়ার্ড হিসাবে দিলে আমাদের অ্যাকাউন্টে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কারণ এই ক্ষেত্রে অসাধু লোকেরা আপনার অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য প্রথমে আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে ঐ গুলো দিয়ে নিজের মতো করে পাসওয়ার্ড তৈরী করে একে একে চেষ্টা করতে থাকবে। এখন চিন্তা করুন এর মধ্যে যদি আপনার কোন তথ্য পাসওয়ার্ড হিসাবে দেওয়া থাকে তাহলে কি হবে ? তাই নিচের পয়েন্ট গুলো খুব ভালো করে পড়ুন এবং এই গুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যাবহার না করার চেষ্টা করুন।

যেসব জিনিস পাসওয়ার্ড হিসাবে কখনোই ব্যবহার করা যাবে নাঃ

  • নিজের নাম বা পরিবারের অন্য কোন ব্যাক্তির নাম
  • মোবাইল নাম্বার (নিজের নাম বা পরিবারের অন্য কোন ব্যাক্তির)
  • জন্ম স্থান
  • জন্ম তারিখ ইত্যাদি।

এক কথায় বলতে হয় শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করতে হলে আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য গুলো পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে। যতটুকু সম্ভব আলাদা রকমের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার চেষ্টা করতে হবে, যাতে করে কেউ অনুমান করতে না পারে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরী করার পদ্ধতি

১. ছোট পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকতে হবে। যতটুকু সম্ভব বড় দৈর্ঘ্যের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।
২. বড় ও ছোট (Ex: AlamiN) হাতের অক্ষরের সমন্বয়ে পাসওয়ার্ড তৈরী করুন।
৩. শুধু অক্ষর ব্যবহার না করে এর সাথে নাম্বার ব্যবহার করুন (AlamiN321) সামনে পেছনে অথবা মাঝে।
৪. মনে রাখার জন্য নিজের নাম পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করলে সরাসরি নামটি না দিয়ে একটু পরিবর্তন করে ব্যাবহার করুন। যেমনঃ আপনার নাম Asik তাহলে আশিকের A শব্দ টাকে @ চিহ্ন দ্বারা সামান্য পরিবর্তন করে দিতে পারেন এবং সেই সাথে নাম্বার বা অন্য কিছু যোগ করে দিতে পারেন।
৫. পাসওয়ার্ডে স্পেশ্যাল ক্যারেক্টার অথবা বিভিন্ন প্রকারের চিহ্ন যেমনঃ [email protected]#$%^&*() ইত্যাদি ব্যবহার করুন । এতে করে আপনার পাসওয়ার্ড অনেক বেশি শক্তিশালী হবে।
৬. কিছু চিহ্ন বা স্পেশ্যাল ক্যারেক্টার গুলো ইংরেজি অনেক অক্ষরের সাথে মিলে যায়। যেমনঃ [email protected], S=$ এমন কিছু জিনিস মিল রেখে আপনি পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।


উপরের বিষয় গুলো মেনে যদি পাসওয়ার্ড নিবার্চন করেন, তাহলে আশা করছি আপনার পাসওয়ার্ড যথেষ্ট পরিমাণ শক্তিশালী হবে এবং অসাধু ব্যাক্তিদের অনুমাণের বাইরে থাকবে। এতে করে আপনার গুরুত্বপূর্ণ একাউন্টগুলো সুরক্ষিত থাকবে ।

পাসওয়ার্ড পরীক্ষা করুন

এখন আপনার মনে একটি প্রশ্ন আসতেই পারে যে, আপনি যে পাসওয়ার্ড তৈরি করেছেন সেটি কতটা মজবুত ? এই বিষয়টি কিভাবে জানবেন তাই তো? এর জন্য অনলাইনে কিছু পাসওয়ার্ড চেকার ওয়েবসাইট রয়েছে, যেখানে আপনার পাসওয়ার্ড কতটা শক্তিশালী সেটি যাচাই করে দেখতে পারবেন। যেমন নিচের ছবিটিতে দেখছেনঃ

পাসওয়ার্ড চেকার

আপনার পাসওয়ার্ড কতটা শক্তিশালী চেক করতে এইখানে ক্লিক করুন- পাসওয়ার্ড চেকার

পাসওয়ার্ড ব্যাবহারে বদ অভ্যাস

অনেকে মজবুদ পাসওয়ার্ড তৈরী করার পরেও আমরা আরেকটি ভুল করে বসে থাকি, সেটি হলো একই পাসওয়ার্ড বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ব্যবহার করি যা খুবই বিপদজনক ব্যাপার। এটি একটি সাধারন অনুমানের বিষয় যে, কেউ যদি আপনার কোন একটি অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড পেয়ে যায় তাহলে সে অন্যসব একাউন্ট গুলোতেও ঐ একই পাসওয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করার চেষ্টা করবে। এতে করে যেখানে আপনার একটি অ্যাকাউন্টের ক্ষতি হতো, সেখানে অন্য সকল অ্যাকাউন্ট ও ক্ষতির মুখে পড়ে গেল। তাই যথা সম্ভব ভিন্ন একাউন্টের জন্য ভিন্ন ভিন্ন পাওসয়ার্ড ব্যবহার করুন।

যদি পাসওয়ার্ড ভুলে যান তাহলে পাসওয়ার্ড মনে রাখার জন্য কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করুন । যেমন, আপনি যে সাইটে অ্যাকাউন্ট করছেন সেই সাইটের নাম আপনার মূল পাসওয়ার্ডের সাথে যুক্ত করে দিয়ে দিতে পারেন । এতে করে আপনার পাসওয়ার্ড মনে থাকবে এবং অ্যাকাউন্টও অনেক বেশি শক্তিশালী হবে।

ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সেভ

অনেকেই আমরা ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখি। যাতে করে পরবর্তীতে লগিন করতে আবার পাসওয়ার্ড প্রবেশ করানোর ঝামেলা না থাকে। কিন্তু এটা একটি খারাপ অভ্যাস বলে মনে করি, কারণ ব্রাউজারে সেভ হয়ে থাকা পাসওয়ার্ড খুব সহজেই দেখা সম্ভব। আপনার অজান্তেই যে কেউ আপনার ব্রাউজারে সেভ থাকা পাসওয়ার্ড গুলো দেখে নিতে পারে এবং আপনার অ্যাকাউন্টের ক্ষতি করতে পারে । তাই ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সংরক্ষন করা থেকে বিরত থাকুন, একটু কষ্ট করে হলেও পাসওয়ার্ড টাইপ করে লগিন করুন।

পাসওয়ার্ড মনে না থাকলে কি করবেন

আপনি যদি পাসওয়ার্ড মনে রাখতে না পারেন তাহলে অফলাইনে পাসওয়ার্ড লিখে রাখতে পারেন । কিন্তু এইসবও অন্যের হাতে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । তাই সম্ভব হলে নিজের মাথায় পাসওয়ার্ড গুলো সংরক্ষন করে রাখার চেষ্টা করুন।

আশা করছি, পাসওয়ার্ডের টিপস এন্ড ট্রিক গুলো আপনাদের কাজে আসবে এবং আপনি এই টিপস গুলো ব্যাবহার করে আপনার অ্যাকাউন্টের জন্য সঠিক এবং মজবুত পাসওয়ার্ড তৈরী করতে পারবেন।

লেখাটি ভালো লাগলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন। কোনো জিজ্ঞাসা অথবা পরামর্শ থাকলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

বিডিটেকটিউনার

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment