সাদা চুল কালো করার কয়েকটি কার্যকরী উপায়

মানুষের সৌন্দর্যের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হলো তার চুল। ঘন কালো চুল ছেলে ও মেয়ে উভয়েরই অনেক পছন্দ। কিন্তু বয়সের আগেই যদি চুল সাদা হয়ে যাওয়া শুরু করে তবে সেটা ছেলে ও মেয়ে উভয়ের জন্যই চরম বিরক্তির কারণ হয়ে ওঠে । ছেলেরা মাথায় কাঁচা পাকা চুল নিয়ে বয়সের তুলনায় বেশি বয়স্ক ভাব নিয়ে ঘুরে বেড়ালেও মেয়েদের জন্য এটা একটা বিড়ম্বনা ছাড়া আর কিছুই নয়! আর এই পাকা বা সাদা চুলের হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকে চুলে কলপ ব্যবহার করে থাকেন। আবার কেউ কেউ চুলে কালার করার মাধ্যমে পাকা চুল ঢাকার চেষ্টা করেন। বয়স বৃদ্ধির একটা পর্যায়ে এসে চুল সাদা হবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বয়সের আগে চুল পেকে গেলে বা সাদা হয়ে গেলে, তখন এটি ছেলে বা মেয়ে উভয়েরই চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

Table of Contents

অল্প বয়সে চুল পাকার কারণ

মানুষের চুলের রং নির্ভর করে মেলানিন নামন এক প্রকার হরমোনের ওপর। বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে শরীরের মেলানিন তৈরির ক্ষমতা ধীরে ধীরে কমে আসে বলেই বৃদ্ধ বয়সে মানুষের চুল সাদা হয়ে যায় বা পেকে যায়। আর অল্প বয়সে চুল সাদা হয়ে যাওয়ার প্রধান কারণ হল জিন বা বংশগতির প্রভাব। এছাড়াও আরও কিছু কারণে অল্প বয়সে চুল সাদা হয়ে যেতে পারে সেগুলো হল – স্ট্রেস, ভাইটামিন বি-১২ এর অপর্যাপ্ততা, থাইরয়েড সমস্যা, অতিরিক্ত স্মোকিং ইত্যাদি। কারণ যাই হোক না কেন, অল্প বয়সে চুল পাকার সমস্যায় কি আপনিও ভুগছেন ? তাহলে কলপ বা হেয়ার কালার ইউজ না করে, প্রাকৃতিকভাবে সাদা চুল কালো কালো করার কিছু উপায় জেনে নিন। চলুন তাহলে দেরি না করে জেনে নেই, কার্যকরী কিছু হেয়ার প্যাক সম্পর্কে, যা আপনার সাদা চুলকে প্রাকৃতিক ভাবে কালো করতে সাহায্য করবে।

মেলানিন হরমোন

১. আমলকী এবং মেথি প্যাক

আমলকী তে আছে প্রচুর পরিমাণে ভাইটামিন-সি। আর মেথির গুড়োতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে পুষ্টি এন্ড অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। মেথি গুঁড়া এবং ভাইটামিন-সি (আমলকী) একসাথে মিলে চুল পাকা প্রতিরোধ করে। এছাড়াও এই প্যাকটি আপনার চুলের গোড়াকে মজবুত করবে এবং সেই সাথে চুলকে করবে আরও বেশী হেলদি।

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • আমলকী ৬-৭ পিস / টুকরো
  • মেথি গুড়া ১ টেবিল চামচ
  • অলিভ অয়েল অথবা নারিকেলের তেল ৩ টেবিল চামচ
যেভাবে আমলকী এবং মেথি প্যাক তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

সবার প্রথমে চুলায় একটি পাত্রে তেল ভালোভাবে গরম করুন। তেল ভালোভাবে গরম হওয়ার পর এতে আমলকী গুলো দিয়ে নাড়তে থাকুন। কিছুক্ষণ পরে এতে মেথি গুঁড়া মিক্সড করে দিন। সবগুলো উপাদান ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে নামিয়ে রাখুন। এরপর একটি বোতলে বা জারে তেলটি সংরক্ষণ করুন এবং ঠান্ডা হওয়ার পর চুলে ব্যবহার করুন। সম্পূর্ণ রাত প্যাকটি মাথায় রাখতে চেষ্টা করবেন। সকালে উঠে মাথায় শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই প্যাকটি প্রত্যেক সপ্তাহে এক বা দুইবার ব্যবহার করুন।

২. আলুর খোসা ফোটানো জল

সাদা চুল কালো করার জন্য আলুর খোসা বেশ কার্যকরী একটি উপাদান। আলুর খোসা গুলোতে প্রচুর পরিমানে স্টার্চ থাকে, যা চুলে রঙিন রঞ্জক পদার্থকে ধরে রাখে এবং চুলকে সাদা হওয়া থেকে রোধ করে।

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • ৫-৬টা আলুর খোসা (আলু ছাড়িয়ে তার খোসা)
  • নরমাল পানি দুই কাপ
যেভাবে আলুর খোসা দিয়ে প্যাক তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

চুলায় একটি পাত্র নিয়ে তাতে দুই কাপ পানি দিয়ে দিন। এরপর পানি ফুটে না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকুন। কিছুক্ষন ভালোভাবে জ্বাল করে নামিয়ে ফেলুন। চুলে শ্যাম্পু করার পর আলুর খোসা আর পানির এই মিশ্রন দিয়ে চুল ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। আলুর খোসার এই মিশ্রন ব্যবহার করার পর আর কোন পানি ব্যবহার করবেন না। এই মিশ্রন টি প্রতি সপ্তাহে দুইবার চুলে ব্যবহার করুন।

৩. নারিকেল তেল ও কারি পাতা হেয়ার অয়েল


উপকরণ যা যা লাগবে :

  • এক কাপ পরিমাণ কারি পাতা
  • ৪ টেবিল চামচ খাঁটি বা বিশুদ্ধ নারিকেলের তেল
যেভাবে নারিকেল তেল ও কারি পাতা হেয়ার অয়েল তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

প্রথমে একটি পাত্রে বা সসপ্যানে খাঁটি নারিকেল তেল এবং কারি পাতা একসাথে ফুটান । মিশ্রণটি কালো রঙ ধারন করা শুরু হলে চুলা বন্ধ করে দিন । মিশ্রন টি ঠাণ্ডা হয়ে গেলে আপনার চুল ও স্ক্যাল্পে খুব ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন । মিশ্রন টি ব্যাবহারের এক ঘণ্টা পরে শ্যাম্পু করুন । এই নারিকেল তেল ও কারি পাতা হেয়ার অয়েল টি প্রতি সপ্তাহে ২-৩ বার চুলে ব্যবহার করুন।

8. নারকেল তেল এবং লেবুর রসের মিশ্রন

চুলের যত্নে নারিকেল তেলের জুড়ি নেই বললেই চলে । নারিকেল তেল চুলের ময়েশ্চার ধরে রাখার সাথে সাথে চুলের গ্রোথ অনেকাংশে বৃদ্ধি করে এবং চুলকে দেয় তার প্রয়োজনীয় পুষ্টি। আর আমরা প্রায় সবাই জানি যে লেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভাইটামিন-সি।  এই প্যাকটি কিছুদিন নিয়মিত ব্যবহার করলে চুল পাকার সমস্যা কমে যাবে।

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • চা চামচের তিন চামচ লেবুর রস
  • পরিমাণ মত খাঁটি নারিকেলের তেল
যেভাবে নারকেল তেল এবং লেবুর রসের মিশ্রন তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

পরিমাণ মত নারকেল তেলের সঙ্গে ৩-৪ চা চামচ (চুল অনুযায়ী নেবেন) লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর মিশ্রণটি মাথার তালুসহ সম্পূর্ণ চুলে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। এটি চুলে ১-২ ঘণ্টা রেখে পরে চুলে শ্যাম্পু করে ফেলুন। নারকেল তেল এবং লেবুর রসের মিশ্রণটি প্রত্যেক সপ্তাহে কমপক্ষে একবার ব্যবহার করুন।

৫. মেথি ও নারকেল তেলের মিশ্রণ

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • এক কাপ পরিমানে নারিকেলের তেল
  • আধা কাপ পরিমাণে মেথি দানা
যেভাবে মেথি ও নারকেল তেলের মিশ্রণ তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

প্রথমে একটি সসপ্যান বা পাত্রে খাঁটি নারিকেল তেল ফুটিয়ে নিন। তেল ভালোভাবে ফুটে এলে এর মধ্যে মেথি দানা দিয়ে দিন এবং ৮-১০ মিনিট ভালোভাবে ফোটান । এরপর মিশ্রণ টিকে ঠাণ্ডা করে ছেঁকে নিন । রাতে সম্পূর্ণ চুল ও স্ক্যাল্পে মিশ্রণটি ভালো করে সময় নিয়ে ম্যাসাজ করুন । সকালে উঠে শ্যাম্পু করে ফেলুন । মেথি ও নারকেল তেলের মিশ্রণ টি সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন ।

৬. মেহেদি এবং কফির পেস্ট

মেহেদি চুলের জন্য কতটা উপকারি তা আমরা প্রায় সবাই জানি। এটি প্রাকৃতিকভাবেি চুলকে কাল করতে সহায়তা করে। অন্যদিকে, কফিতে আছে ক্যাফিনের মত শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা চুল স্ট্রং এবং শাইনি করতে সাহায্য করে। মেহেদি এবং কফির পেস্ট টি চুলের গোড়া শক্ত করতেও খুব কার্যকরী।

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • পরিমান মত মেহেদির পেস্ট (মেহেদি বাটা)
  • ১ টেবিল চামচ পরিমাণে কফি
যেভাবে মেহেদি এবং কফির পেস্ট তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

প্রথমে ফুটন্ত পানিতে এক টেবিল চামচ পরিমাণ কফির গুঁড়ো দিয়ে দিন। এবার ভালোভাবে কিছুক্ষন জ্বাল করে নামিয়ে ফেলুন। এরপর মেহেদী বাটা অথবা পেস্টের সাথে কফি মেশান। প্যাকটি ঘণ্টাখানেক এভাবেই রেখে দিন, তারপর চুলে ব্যবহার করে ঘন্টাখানেক রেখে দিন, পরে শ্যাম্পু করে ফেলুন। আপনি চাইলে এই মিশ্রণের সঙ্গে নারিকেল তেল অথবা অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

৭. আমলা, কফি ও হেনা প্যাক

উপকরণ যা যা লাগবে :

  • ৩ চা চামচ পরিমাণে আমলা পাউডার
  • দুই চা চামচ পরিমাণে কফি পাউডার
  • এক থেকে দেড় কাপ পরিমাণে হেনা পাউডার
  • অলিভ অয়েল ২ চা চামচ পরিমাণে
যেভাবে আমলা, কফি ও হেনা প্যাক তৈরি ও ব্যাবহার করবেন

সবগুলি উপকরণ একটি কাঁচের পাত্রে অথবা বাটিতে ভালো করে মিশিয়ে নিন । এরপর হাল্কা গরম পানি দিয়ে মসৃণ পেস্ট তৈরি করে নিন । সম্পূর্ণ চুলে সময় নিয়ে ভালো করে লাগান। ঘণ্টাখানেক রেখে দেওয়ার পরে মাইলড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন । এই প্যাকটি প্রতি মাসে ১ বার ব্যবহার করাই যথেষ্ট ।

উপরোক্ত মিশ্রণ বা প্যাক গুলো ছাড়াও আরও কিছু উপাদান রয়েছে যা আপনার চুলকে পেকে যাওয়া বা সাদা হয়ে যাওয়া থেকে প্রাকৃতিক ভাবে রক্ষা করতে পারে ।

  • পেঁয়াজ আমাদের মাথায় নতুন চুল গজাতে সাহায্য করার সঙ্গে সঙ্গে পাকা চুল কালো করার ক্ষেত্রে খুব ভাল কাজ করে।
  • প্রতিদিন ১ গ্লাস করে গাজরের রস গ্রহন করলে চুল পাকার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে যায়। গাজরের রস সরাসরি চুলে ব্যবহারের থেকে মুখে খাওয়াই বেশি কার্যকরী।
  • তিল, চুল পাকা বা সাদা হওয়া রোধ করতে সাহায্য করে।
  • দ্রুত পাকা চুল কালো করতে চাইলে ব্ল্যাক কফি ব্যবহার করুন। তরল ব্ল্যাক কফি দিয়ে আপনার চুলের আগা থেকে গোঁড়া পর্যন্ত ধুয়ে ফেলুন। এটি সাময়িক ভাবে চুলকে কালো করতে সহায়তা করে।
  • এছাড়াও চা পাতার মধ্যেও রয়েছে সাদা চুল কে কালো করার ক্ষমতা ।

উপরের উল্লিখিত প্যাক বা মিশ্রণ গুলো নিয়মিত ব্যবহার করলে চুল পাকা অনেকাংশে হ্রাস পাবে এবং চুলকে করবে গোড়া থেকে শক্তিশালী। তাই আপনার চুলের যত্নে প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি এই হেয়ার প্যাকগুলো ব্যবহার করতে পারেন ।

বিডিটেকটিউনার

Share on:

আমি অঞ্জন, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই ব্লগে টিপস & ট্রিকস, অনলাইন ইনকাম, কম্পিউটার সমস্যা সমাধান সহ আরো অনেক কিছুর উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment